বাংলাদেশিদের জন্য ফেসবুকে মারামারির রিএ্যাকশন আনার দাবি

৩২৭ পঠিত ... ১৭:০৫, এপ্রিল ১৩, ২০২১

ফেসবুক স্ট্যাটাস, ফেসবুকে কমেন্টের সূত্র ধরে প্রায়ই মারামারির ঘটনা ঘটে বাংলাদেশে। এমন সহিংসতা রুখতে ফেসবুকেই মারামারির রিএ্যাক্ট নিয়ে আসার দাবি তুলেছে অনেকে। ফেসবুকে এমন রিএ্যাক্ট নিয়ে আসলে একই সাথে দুটি উদ্দেশ্যই সফল হবে বলে মত দিয়েছেন অনেক বিশেষজ্ঞ। বাংলাদেশিদের চিরচারিত মারামারির সাধ পূরণের পাশাপাশি বাস্তবিক সহিংসতাও কমে আসবে।

171043370_820249015240977_8225421997812306435_n

এ বিষয়ে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ মেহতাব খানম নিজের ফেক আইডি থেকে বলেন, 'মানুষের মনের পাশবিক সত্বার বহিঃপ্রকাশই মূলত মারামারি। এই পাশবিক সত্তাকে কোনভাবে দমন করতে পারলে মারামারিও কমানো সম্ভব। ফেসবুকের এই রিএ্যাকশন ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষ প্রাথমিক উত্তেজনা কমাতে পারবে। একটা কিলঘুষির রিএ্যাকশন মনকে শান্ত করবে এক কিলোসেকেন্ডে। এতে মারামারির স্বাদ তো মিটবেই, ক্ষতিও হবে না। একদম এক ঢিকে দুইপাখি যাকে বলে।'

ফেসবুক স্ট্যাটাসের সূত্র ধরে মারামারি করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এক ব্যক্তিও এমন দাবির পক্ষে নিজের মতামত দিয়েছেন। তিনি বলেন, 'ফেসবুকে নিজের বিরুদ্ধে কিছু দেখলেই মাথার তার ছিড়ে যায়। এমন রিএ্যাকশন আনলে প্রতি রিএ্যাকশনে একটা করে তার জোড়া দেয়া যাবে। আরে ভাই, মারামারি করতেও শক্তি লাগে। নিজেও কিছু খাইতে হয়। আবার মারামারি না করলেও কিছু ভালো লাগে না। ঘুম আসে না, খাওয়ায় অরুচি হয়। এখন থেকে ফেসবুক রিএ্যাকশনে রিএ্যাকশনে মারামারি করুম। টাল হইলেও ডিজিটালে হমু।'

ফেসবুক কর্তৃপক্ষও এমন রিএ্যাকশন আনার ব্যাপারে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন। পাশাপাশি বিশেষ কিছু ফিচারের কথাও জানান তারা। তারা জানান, 'ব্যক্তি পর্যায়ের মারামারির পাশাপাশি গ্রাম পোড়ানো ও ঘরবাড়ি ভাংচুর করা যাদের শখ তাদের জন্য আমরা ফেসবুকে ডিজিটাল ভিলেজ রাখবো। ওখানেই গিয়ে মনের সুখে জ্বালাও, পোড়াও করতে পারবেন।'

মারামারির রিএ্যাকশনের পাশাপাশি একটি '৫৭ ধারা' রিএ্যাকশন আনার বিষয়েও মত দিয়েছেন অনেকে। এমনই একজন বলেন, 'শুধু জনগণের কথা ভাবলেও হবে না। ভাবতে হবে সরকারের কথাও। '৫৭ ধারা' রিএ্যাকশন ব্যবহার করে তারাও নিজেদের রাগ ক্ষোভকে প্রশমিত করতে পারবেন। হুদাই কেউ হয়রানি হবে না।'

৩২৭ পঠিত ... ১৭:০৫, এপ্রিল ১৩, ২০২১

Top