দেশের প্রথম 'সাহেদ পুরস্কার' পাচ্ছেন সাংবাদিক নাজমুল হোসেন

৫৮৭২ পঠিত ... ২৩:০১, অক্টোবর ১৫, ২০২০

 

সারাদেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে 'বঙ্গবন্ধু কর্নার' এর জন্য 'বঙ্গবন্ধু মানেই স্বাধীনতা', শেখ মুজিবের কারাবাস নিয়ে বই '৩০৫৩ দিন' ও 'অমর শেখ রাসেল' নামের তিনটা বই সরবরাহ করা হয়। যমুনা টিভির সিনিয়র রিপোর্টার নাজমুল হাসান নামের এক ব্যক্তির মালিকানাধীন জার্নি মাল্টিমিডিয়া ও স্বাধীকা পাবলিশার্স নামে দুটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান বইগুলো প্রকাশ ও সরবরাহ করে প্রায় ২০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। 

কিন্তু খবর নিয়ে দেখা যায়, বইগুলো আসলে অন্য পাবলিশিং কম্পানির। 'বঙ্গবন্ধু মানেই স্বাধীনতা' বইটি প্রথম প্রকাশ করেছিলো, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়, '৩০৫৩ দিন' বইটি কারা অধিদপ্তরের। 'অমর শেখ রাসেল' নামের বইটি স্বাধীকা পাবলিশার্সের হলেও নতুন মুদ্রণ ও বঙ্গবন্ধু কর্নারের সরবরাহের ব্যাপারে বইটির সম্পাদক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য নাসরিন আহমেদকে জানানো হয়নি কিছুই।

নাজমুল হোসেন নামের এই ভদ্রলোকের বিরুদ্ধে বইগুলোর সম্পাদনা পর্ষদের নাম ওলট পালট করে সেখানে নিজের নাম বসিয়ে দেয়ার অভিযোগও উঠেছে।

প্রতারণায় এমন দুর্দান্ত পারফর্মেন্স দেখানোয় এই নাজমুল হোসেনকে দেয়া হচ্ছে প্রতারণা সেক্টরের সবচেয়ে দামি পুরষ্কার 'সাহেদ পুরষ্কার'। নাজমুল হোসেনকে এই পুরষ্কার দিতে পেরে আনন্দিত রিজেন্ট হাসপাতালের সাহেদ। জেল থেকে তিনি বলেন, 'দেশে তো এলেমদার লোক আমি একা না। অসংখ্য। সাহেদ পুরষ্কারের মাধ্যমে এইসব এলেমদার লোকদের প্রমোট করা হবে। তাদেরকে প্রাপ্য সম্মান বুঝিয়ে দেয়া হবে।'

'দেশের সকল বিশিষ্ট, গুনী প্রতারককেই ধীরে ধীরে সাহেদ পুরষ্কার দেয়া হবে' এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে সাহেদ বলেন, 'কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। একে একে সবাইকে পুরষ্কার দেয়া হবে।' 

পুরষ্কার গ্রহণ করে সাহেদ পুরষ্কারকে মহিমান্বিত করার জন্য নাজমুল হোসেনকে অনুরোধও করেন সাহেদ। এছাড়াও দ্রুত জেলে আসার আহ্বান জানিয়ে সাহেদ বলেন, 'ভাই, আসেন, একসাথে সেলফি তুলি।'

তবে এই পুরষ্কারের ক্ষেত্রেও প্রতারণার আশ্রয় নেয়া হয়েছে বলে অনেকে অভিযোগ তোলেন। এমন এক প্রতারক বলেন, 'সাহেদ টকশো করতো। নাজমুল যমুনা টিভির হওয়ায় ওর সাথে সম্পর্কও ভালো ছিলো। সেজন্যই এখানে স্বজনপ্রীতি ও প্রতারণা হতে পারে। দুইজন বিশিষ্ট প্রতারকের মধ্যে আসলে আপনি কাকে বিশ্বাস করবেন?'

৫৮৭২ পঠিত ... ২৩:০১, অক্টোবর ১৫, ২০২০

Top