তবে কি নৌকায় ভরসা পাচ্ছেন না গোলাম রাব্বানী?

৪৩৫ পঠিত ... ১৭:৫৭, আগস্ট ১১, ২০২০

বন্যার্ত মানুষের সেবায় মানবতার ফেরিওয়ালা খ্যাত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীও নেমে গিয়েছেন অথৈ পানিতে। সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া একটি ছবিতে দেখা যায়, পাশে নৌকা থাকা সত্ত্বেও গলা সমান পানি পাড়ি দিয়ে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন গোলাম রাব্বানী।

নৌকা থাকা সত্ত্বেও তা ব্যবহার না করে গলা সমান পানিতে নেমে পড়াটাই জনমনে নানাবিধ প্রশ্নের জন্মের দিয়েছে। তাহলে কী এই সাবেক নৌকার মাঝি এখন আর নৌকায় ভরসা করতে পারছেন না? নাকি অতীতের কোন দুঃসহ স্মৃতি নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন বোটোফোবিয়ায়?

eআরকির ঘরে বসে করা এক অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে এমন নানা প্রশ্নের উত্তর।

নাম প্রকাশে ইচ্ছুক (আমরা অনিচ্ছুক) এক ছাত্ররাজনীতিবিদ মনে করেন, একবার নৌকা থেকে পড়ে যাওয়ার দুঃসহ স্মৃতি তাড়া করে বেড়াচ্ছে রাব্বানীকে। হয়তো সেকারণেই কোন ধরণের ফোবিয়ায় ভুগছেন। নৌকায় উঠতে ইনসিকিওর বোধ করেন। নইলে একটা মানুষ নৌকা থাকতে পানিতেই বা কেন নামবে, কেনইবা বস্তাও কাঁধে নিতে হবে!'

তবে ছাত্রলীগের আনঅফিশিয়াল এক ফটোগ্রাফার বলেন ভিন্ন কথা। পলিটিক্যাল বড় ভাইদের কয়েক লাখ ছবি তোলার অভিজ্ঞতা থেকে এই সহমত ভাই বলেন, 'ফটোগ্রাফারের নির্দেশনায় এমন হতে পারে। নৌকায় বসলে ফ্রেম মেবি ঠিকঠাক আসছিলো না।'

যে ছবিটি তুলেছে তাকে ছোট করে একটা পরামর্শও দেন তিনি। তিনি বলেন, ব্যাগগুলা কাধে না নিয়ে মাথায় নিলে ভালো হতো। চেহারাও স্পষ্ট হইতো। ত্রাণ মাথায় তোলায় আবেদনটাও বাড়তো।

তবে রাব্বানীর আত্মনিবেদনের প্রশংসা করে জাস্টিফিকেশন লীগের এক ভাই বলেন, 'উনি একজন ফেরিওয়ালা। মানবতা ফেরি করেন। একজন ফেরিওয়ালা যদি নৌকায় বসে আরাম করে যায় তাইলে তো বিষয়টা হইলো না। পায়ে হেঁটে, সাঁতরে, ছেস্রায়ে না গেলে কী করে তিনি প্রোপারলি ফেরিটা করবেন, বলুন?'

ফেরিওয়ালার ধর্ম মনে করিয়ে দিয়ে তিনি আরো বলেন, একজন ফেরিওয়ালা বিমান থাকলেও ফেরিওয়ালা, এতো সামান্য নৌকা।

৪৩৫ পঠিত ... ১৭:৫৭, আগস্ট ১১, ২০২০

Top