ঘুষ লেনদেনে বাংলাদেশিদের মত সততা আর কোথাও দেখিনি: বরখাস্ত হওয়া কুয়েতি জেনারেল

৯৯৬৩ পঠিত ... ২০:০৬, জুলাই ০১, ২০২০

মানবপাচার, অর্থপাচার এবং কুয়েতের সরকারি কর্মকর্তাদের ঘুষ দেয়ার অভিযোগে সম্প্রতি সেখানে গ্রেফতার করা হয় বাংলাদেশি সাংসদ শহিদ ইসলাম পাপুলকে। অন্যদিকে পাপুলের কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে বরখাস্ত হন কুয়েতের মেজর জেনারেল মাজেন আল জাররাহ।

সংবাদ মাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথে আমরা কুয়েত অ্যাম্ব্যাসির মাধ্যমে যোগাযোগ করি মেজর জেনারেল মাজেনের সাথে। কেমন ছিলো বাংলাদেশি নাগরিকের কাছ থেক ঘুষ নেয়ার অভিজ্ঞতা? ঘুষের টাকা ঠিক সময়ে পরিশোধ করা হয়েছিলো তো? এরকম আরো নানান প্রশ্নের উত্তর জানতে চাই তার কাছে।

ফোন রিসিভ করতেই আমরা পরিচয় দিয়ে বললাম, 'স্যার, ঘুষের ব্যাপারে একটু কথা বলতে চাই।'
প্রশ্ন শুনেই হকচকিয়ে উঠলেন মেজর জেনারেল মাজেন। ঢোক গিলে বললেন, 'ওসব নেয়া আমি ছেড়ে দিয়েছি। হু আর ইউ? আর ইউ পাপুল'স ব্রাদার?
আমরা বুঝিয়ে বললাম, 'স্যার, ঘুষ দিতে ফোন করিনি। আমরা আপনার ঘুষ নেয়ার অভিজ্ঞতা জানতে ফোন করেছি৷'
এবার যেন একটু আশ্বস্ত হলেন জেনারেল মাজেন। হাসিমাখা কন্ঠে বললেন, 'ওটা ছিলো ওয়ান অব দ্য বেস্ট ঘুষ নেয়ার অভিজ্ঞতা৷ তোমাদের ব্রাদার পাপুল ইজ আ গ্রেট ম্যান অব ব্রাইব।'
: স্যার, ভুল করছেন। উনি আমাদের ভাই না।
: তোমরা তাকে অস্বীকার করছ কেন? ইউ শুড বি প্রাউড অব হিম।
: স্যার ঘুষ কি ঠিক সময়ে পেয়েছিলেন?
: আলবাৎ! একদম ফিক্সড ডেটেই আমার একাউন্টে টাকা চলে এসেছিলো৷ ঘুষ লেনদেনে বাংলাদেশিদের মত সততা আমি অন্য কোথাও দেখিনি। এ ব্যাপারে তোমরা খুবই সৎ৷
: স্যার, নিজের দেশের সাথে গাদ্দারি করলেন। আপনার কি অনুতাপ হয়নি?
: হয়েছিলো৷ এরপর পাপুল আমাকে মোটিভেট করলো৷ ও বলল, গাদ্দারি করলে একদিন তুমিও আমার মত নেতা হতে পারবে।
: স্যার, এখনো কি নেতা হতে চান?
: নাহ। পাপ-উলের কথায় তাড়িত হয়ে আমি পাপ করেছি৷ আমি এখন জাস্ট চাকরিতে ফিরতে চাই।

এটুকু বলেই জেনারেল একটু সময় নিলেন, মনে হলো যেন চোখ মুছলেন। তার মন খারাপ দেখে আমরা বললাম, 'স্যার আপনি চাইলে বাংলাদেশ থেকে ঘুরে যেতে পারেন।'
: হ্যাঁ ঘুরতে আসবো৷ তোমাদের আতিথেয়তার গল্প শুনেছি৷ পাপুল বলেছিলো, বাংলাদেশে লাসভেগাসের মত ক্যাসিনোও আছে।
: স্যার আপনি চলে আসুন। ক্যাসিনোতে সবাই আপনার সাথে খেলার জন্য ওয়েট করতেছে।

এবার যেন মন ভাল হয়ে গেলো মেজর জেনারেলের। ফোন রাখার আগে বললেন, 'আমি চাকরি বাঁচানোর জন্য ঘুষ দেয়ার চেষ্টা করছি। চাকরি ফিরে পেলেই তোমাদের দাওয়াত দেবো। ইউ উইল বি মাই স্পেশাল গেস্ট। তোমাদের পার্সোনাল নাম্বারটা দাও।'

আমরা দ্রুত লাইন কেটে দিলাম।

৯৯৬৩ পঠিত ... ২০:০৬, জুলাই ০১, ২০২০

Top