অকালে পেকে যাওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হলো কাঁঠাল, দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর

৩২৮ পঠিত ... ১৯:৩৩, জুন ২৭, ২০২০

আজকাল গ্রেফতার আতংকে যখন মানুষই ঠিকমত ঘুমাতে পারছে না, ঠিক তেমন সময়েই গ্রেফতার হয়েছে একটি কাঁঠাল। গাছ মালিকের অনিচ্ছা সত্ত্বেও অকালে পেকে যাওয়াই কাল হয়েছে তার। গতকাল মধ্যরাতে কাঁঠালটিকে তার নিজ গাছভবন থেকে আটক করে পুলিশের একটি বিশেষ ইউনিট। এ সময় কাঁঠালটি তার জন্মসনদ দেখাতে চাইলে পুলিশ নাকচ করে দেয়।

গ্রেফতার হওয়া সেই কাঁঠাল

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, তারা দীর্ঘদিন ধরেই কাঁঠালটির উপর নজর রাখছিলো। এর আগেও ওই কাঁঠালটির পরিবারের দুই সদস্য এই অবৈধ পথ বেঁছে নিয়েছিলো বলে জানা যায়। গতকাল রাতেই পুলিশ কাঁঠালটিকে হাতেনাতে ধরে। আটক করার পর পুলিশ কাঁঠালটিকে আদালতে হাজির করলে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে।

তবে রিমান্ডে নিয়েও কাঠালের কোয়া থেকে কোনো কথা বের করতে পারেনি পুলিশ। বরং দুজন অফিসার কাঁঠালটির আঠালো কথায় জড়িয়ে যায়। নিজের উপর আনা অভিযোগ চার বাক্যে অস্বীকার করে কাঁঠাল বলেন, 'বার্থ সার্টিফিকেটে অনুযায়ী আমি সাবালক। আমাকে অন্যায়ভাবে ধরে রাখা হয়েছে। গ্রীষ্মকালে পেকে আমি আমার মত প্রকাশ করেছি। এতে সমস্যা কোথায়?'

এদিকে গাছের মালিক জানান, 'আমি গোঁফে তেল দেয়া তো দূরের কথা, তেল কিইনাও আনি নাই। সে তার আগেই পাইকা গেছে। আপনারা এর একটা বিহিত করেন। এমন ইঁচড়ে পাকা কাঁঠাল আমি জীবনেও দেখি নাই...'

অন্যদিকে, অকালে পাকার অপরাধকে ক্ষমার অযোগ্য বলে উল্লেখ করে পুলিশের তরফ থেকে বলা হয়, 'কঠিন সাজা না পেলে এরা শুধরাবে না। তাই দ্রুত বিচার আইনে এই কাঁঠালের বিচার করলে অন্যরাও শুধরে যেতো।' এ সময় জনৈক পুলিশ সদস্য উক্ত কাঁঠালের বিরুদ্ধে ঘুষের প্রোলোভন দেখানোর অভিযোগ এনে বলেন, 'কত্ত বড় সাহস! আমাকে ঘুষ অফার করে! আমাকে বলেছে, ওস্তাদ আমি কিন্তু রসালো আছি, একটু চাইখা দেখেন। দুইটা কোয়া খাইলেই ছাইড়া দিতে ইচ্ছা করব।'

তবে এই অভিযোগও একেবারে উড়িয়ে দিয়ে কাঁঠাল জানিয়েছেন, 'ওই অফিসার মূলত কাঁঠাল খান না। এইজন্য প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে আমাকে জড়াতে চাইছেন।'

৩২৮ পঠিত ... ১৯:৩৩, জুন ২৭, ২০২০

Top