দীর্ঘদিন ব্যবসা না থাকায় ফাইলপ্রতি ঘুষ ৬০% বাড়িয়ে দেয়ার অনুরোধ সরকারি কর্মকর্তাদের

৩৯৯ পঠিত ... ২১:৫১, জুন ০১, ২০২০

দুই মাসের লকডাউনের কারণে বড়-ছোট নানান ধরণের ব্যবসায়ীরা ক্ষয়-ক্ষতির শিকার হয়েছে। একই সাথে বিশাল ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে বাংলাদেশ ঘুষ বাণিজ্যও। এক ধারণা করা গবেষণায় দেখা গেছে, ফাইল ছাড়তে না পারায় প্রতিদিন গড়ে কয়েকহাজার ট্রানজেকশন বন্ধ ছিলো তাদের। দীর্ঘদিন ধরে হয়ে আসা এমন অকল্পনীয় ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে ফাইল প্রতি ন্যুনতম ৬০% ঘুষ বাড়িয়ে নেয়ার প্রস্তাব উত্থাপন করেছেন বাংলাদেশ ঘুষখোর উন্নয়ন সমিতি (বাঘুস)।

সাধারণ ছুটি শেষ হওয়ার সাথে সাথে বাঘুসের উদ্যোগে 'ঘুষ বাণিজ্যের ফের সুদিনের লক্ষ্যে' শীর্ষক এক আলোচনা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সরকারের কাছে এমন অনুরোধ করেন সংশ্লিষ্টরা। 'দুনিয়ার ঘুষখোর এক হও' স্লোগানে মুখরিত সভায় বাঘুসের সভাপতি বলেন, দীর্ঘদিন বাসায় থাকায় এই শিল্প কিছুটা খেই হারিয়েছে। খেই হারিয়ে বাতাসে বুকের সাথে মিশে গেছে এই শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট মানুষদের পকেটও। আমাদের টেবিলের নিচের চোখগুলোও অনেকদিন উপোষ, ঘুষের আলোতে তারাও চোখ জুড়াচ্ছে না অনেকদিন। এই ক্ষতি অতিদ্রুত পোষাতে হলে ডাবল শিফটে পেমেন্ট নিতে হবে। কিন্তু জনগণের কথা চিন্তা করে আমরা ডাবল শিফট নিবো না, আমাদেরকে প্রতি ফাইলে ৬০% ঘুষ বাড়িয়ে দিলেই হবে।'

সভায় উপস্থিত সবাইকে ৬০% বাড়তি ঘুষ ছাড়া ফাইল না ছাড়ার শপথ করিয়ে তিনি আরো বলেন, 'আমাদেরকে একদাম-একরেট নীতিতে আগাতে হবে। জুনিয়র অফিসার হোক কিংবা সিনিয়র, রেট একটাই! ৬০% বাড়তি। কোনভাবেই যেন জুনিয়র অফিসারকে পাশ কাটিয়ে সিনিয়রকে দিয়ে ৫০%-এ কাজ করে কেউ দূর্নীতি করতে না পারে। এই বিষয়ে সবাই সচেতন থাকবেন।'

স্বজনপ্রীতির প্রতি কঠোর হুশিয়ারি দিয়ে তিনি আরো বলেন, 'এই বিশাল ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে আগে স্বজনপ্রীতি বাদ দিতে হবে। ৪০% এ করে দেয়া, সুপারিশ করা, ভাই আমার লোক ছেড়ে দেন- টাইপ কোন ধরণের অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না।'

সভা শেষে ৬০% বাড়তি ঘুষের পক্ষে সরকারি সুপারিশের জন্য উপস্থিত সবার কাছ থেকে ৬০% বেশি হারে প্রি-কমিশন তুলে নেয়া হয়।

৩৯৯ পঠিত ... ২১:৫১, জুন ০১, ২০২০

Top