বুরিন্দা নাকি বুন্দিয়া এই নিয়ে তর্কে ফেসবুক গ্রুপে সংঘর্ষ, ব্যান শতাধিক, ডিএক্টিভেট ৫৪

৫৩৫ পঠিত ... ২১:১৫, মে ০২, ২০২০

পুরো ফেসবুক যখন মেতে আছে জিলাপির প্যাচ নিয়ে, ঠিক তখনই ঘটে গেলো এই অপ্রত্যাশিত ঘটনা। একটি ফেসবুক গ্রুপে 'বুরিন্দা নাকি বুন্দিয়া' বিতর্ক রূপ নিয়েছে ভয়াবহ সংঘর্ষে। দুই গ্রুপের এই সংঘর্ষে আইডি হারিয়েছেন অন্তত ২০ জন। ব্যানাহত (ব্যান খেয়ে আহত) হয়েছেন শতাধিক এবং অর্ধশতাধিক আইডি ডিএক্টিভেটেড হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় গোটা গ্রুপ এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। দুই একজন এখনো কাতর কন্ঠে কমেন্টে বলছেন, 'তগো আইডি খাইয়া দিমু'।

সদ্য আইডি হারানো বুন্দিয়া গ্রুপের জনৈক সদস্যের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কাঁদতে কাঁদতে সেই রোমহর্ষক ঘটনার বর্ণনা করেন। ঘটনার সূত্রপাত কিভাবে হল জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'ভাই, আমি জাস্ট গ্রুপে বুন্দিয়ার ছবি আপ দিয়া লিখছিলাম- my favrt sweet. আর তখনই ওরা নরপশুর মত আমার আইডির উপর অতর্কিত হামলা করে।' এতটুকু বলেই ফুঁপিয়ে কেঁদে ওঠেন তিনি।

এটাকে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হিসেবে আখ্যা দিয়ে তিনি আরো বলেন, 'বুরিন্দা গ্রুপের সদস্যরা 'আইজকা রক্তের বইন্যা বইবো' লিখে অনেকেই ফটোকমেন্টে রক্ত মাখা বুন্দিয়ার ছবি দিতে থাকেন৷'

এদিকে বুরিন্দা গ্রুপের ব্যান খাওয়া সদস্যরা নতুন গ্রুপ খুলেছেন বলে জানা যায়। তাদের নতুন গ্রুপের নাম 'A group where we pretend বুরিন্দা is called বুরিন্দা'।
হঠাৎ কেন আক্রমণ করলেন, জিজ্ঞেস করলে তাদেরই একজন ইনবক্সে আমাদের বলেন, 'সারাজীবন বুরিন্দারে বুরিন্দা নামে ডাইকা আসছি, আইজকা যদি কেউ সেইটারে বদলায়া বুন্দিয়া নামে ডাকে, তাইলে কি মেজাজ ঠিক রাখা যায়, আপনেই বলেন।'

অন্যদিকে সংঘর্ষস্থলের এ্যাডমিন তার গ্রুপে বুন্দিয়ার ছবি আপলোড দেয়াকে নিষিদ্ধ করেছেন। এছাড়া জিলাপি-জালেবি, ছোলা-ঘুগনির মত দুইটা নাম আছে এমন সব খাবারের ছবি এবং খাবার বিষয়ক আলোচনাকেও তিনি নিষিদ্ধ করেন।

৫৩৫ পঠিত ... ২১:১৫, মে ০২, ২০২০

Top