করোনাভাইরাসের প্রভাবে বাতাবি লেবুর ফলনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা

৩৩৩ পঠিত ... ২৩:০৫, মার্চ ৩০, ২০২০

বাতাবি লেবু টেলিভিশন মানে বিটিভির নিজস্ব পৃষ্ঠপোষকতায় প্রতিবছরই দেশে বাতাবি লেবুর বাম্পার ফলন হয়ে থাকে। ঝড়, বন্যা, রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা কিংবা কোন ধরণের কোন আন্দোলনও বাতাবি লেবুর এই ফলনে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে না।

তবে করোনাভাইরাসের প্রভাবে এবার এক অভাবনীয়, অকল্পনীয় ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করছে বিটিভি মানে বাতাবীলেবু টেলিভিশন। তাদের ধারণা এই বছর বাতাবীলেবুর ফলনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

এ বিষয়ে নিজস্ব এক সঙবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিটিভি প্রধান বলেন, 'করোনাভাইরাসের জন্য আমাদের কোন সঙবাদদাতাই বাতাবি লেবুর ফলনের সঙবাদ সংগ্রহ করতে যেতে পারছে না। ফলে আমরা বাতাবি লেবুর ফলন নিয়ে কোন রিপোর্টও দেখাতে পারছি না। বাম্পার ফলনের রিপোর্টই যদি দেখাতে না পারি তাহলে ফলন হইয়াই বা কী লাভ!

রিপোর্টেই বাতাবীলেবুর প্রসার, এমন দাবি করে অন্য এক কর্মকর্তা বলেন, 'বাতাবি লেবুর রিপোর্টিভ ফলনের জন্য আগের বছরের খবর প্রচার করার ব্যাপারেও ভেবেছি। কিন্তু করোনাভাইরাসের খবর আর সচেতনতা প্রচারে তেমন সুযোগ হয়ে উঠছে না।'

বাতাবীলেবুর ফলনে এমন ক্ষয়ক্ষতি বিটিভির শান্তিপূর্ণ ইমেজ নষ্ট করবে বলেও মনে করেন এই কর্মকর্তা। তিনি বলেন, 'বাতাবিলেবু আমাদের শান্তির দূত। দেশের নানান অশান্তি থেকে বিটিভিকে মুক্ত রাখতে বাতাবীলেবুই আমাদের পাশে ছিলো সবসময়। বাতাবি লেবুর ফলন নিয়ে এমন আশঙ্কায় জানি না আর কতদিন বিটিভির শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে পারবো।

তবে বিটিভির বেশ কিছু দর্শক এই বিষয়ে বেশ খুশি। বাতাবি লেবু দেখতে দেখতে ক্লান্ত বিটিভি ফ্যান ক্লাবের এক সদস্য বলেন, 'বাতাবি লেবু আর দেখতে চাই না। করোনাভাইরাসের কারণে যদি বাতাবি লেবুর ফলনে ক্ষয়ক্ষতি হয়, তাহলে আমরা আজই করোনাভাইরাসের উন্নত জাত উদ্ভাবনের কাজে নেমে পড়বো।'

৩৩৩ পঠিত ... ২৩:০৫, মার্চ ৩০, ২০২০

Top