করোনা প্রতিরোধে কিশোরগঞ্জ পৌরসভার জীবাণু দিয়েই জীবাণু মারার 'বিষে বিষক্ষয়' পদ্ধতি

৩৮৫ পঠিত ... ১৮:৪৮, মার্চ ২৬, ২০২০

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গোটা বিশ্ব যখন হিমশিম খাচ্ছে, ঠিক তখনই বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জের একটি পৌরসভা আবিষ্কার করে ফেললো এর অব্যর্থ এক ঔষধ। জানা গেছে, এই ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত হয়েছে 'বিষে বিষক্ষয়' থিওরি। যা ইতোমধ্যে সাড়া ফেলেছে বিশ্ব দরবারে৷

ছবি: কালের কন্ঠ

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, করোনাভাইরাসের বিস্তার প্রতিরোধে কিশোরগঞ্জের ভৈরব পৌরসভা কর্তৃপক্ষ তৈরি করছে জীবানুনাশক স্প্রে। তবে সেই স্প্রে তৈরি করতে ব্যবহার হচ্ছে ময়লা-আবর্জনায় ভর্তি নোংরা জীবানুযুক্ত পানি (সূত্র: কালের কন্ঠ)।

পৌরসভার গাড়িতে ময়লা পানি তুলতে তুলতে জনৈক শ্রমিক নাকের শ্লেষা ঝেড়ে আমাদের বলেন, 'শরীলডা ম্যাজম্যাজ করতাছিলো। আইসা এই ময়লা পুস্কুনির পানিত নাইমা দুইডা ডুব দিয়া উইঠা দেখি এ্যাক্কেরে ঝাকানাকা লাগতাছে। এই পানির ভিত্রে কেরামতি আছে ভাইজান।' এ সময় তিনি এক গ্লাস পানি আমাদের দিকে এগিয়ে দিয়ে বলেন, 'খায়া দেখতে পারেন, বড়ই সুমিষ্ট পানি'।

এ সময় সেখানে দলেবলে উপস্থিত হন উক্ত এলাকার করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্যরা।

'বিষে বিষক্ষয়' থিওরির ব্যাপারে জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি মুখের মাস্ক সরিয়ে থুতনির নিচে এনে পরপর দুইটা হাঁচি দিয়ে বলেন, 'মাছের তেলে মাছ ভাজা বলে একটা কথা আছে না? ব্যাপারটা অনেকটা ওইরকম। করোনাভাইরাস একটা মারাত্মক জীবাণু। ওষুধ দিয়া এইটা মারার কোনো সিস্টেম নাই। এইটা মারতে হইব জীবাণু দিয়াই! এইজন্যই তো বিষে বিষক্ষয় কথাটা আসছে!

জীবাণুযুক্ত পানি তিনি নিজের গায়ে দুবার স্প্রে করে আরও বলেন, 'উন্নত বিশ্বের কাছে আমরা আরো একবার রোল মডেল হয়া গেলাম। বিষে বিষক্ষয় থিওরির ব্যাপারে জানতে অতি শীঘ্রই ইতালি থেকে গবেষক দল আসতেছে এই পৌরসভায়। এইটা আমাদের জন্য অতি গর্বের ব্যাপার।'

ব্যাপারটা কতটা স্বাস্থ্যসম্মত জানতে চাইলে তিনি শ্রমিকদের কাছ থেকে এক গ্লাস পুস্কুনির পানি নিয়ে দুইটা নাপা এক্সট্রা খেয়ে বলেন, 'তিনবেলা এই পানি দিয়া ওষুধ খাইতেছি। খুবই কাজে দিতেছে। আগে মাথাব্যথা ছিল, এখন নাই। তবে ব্যাপারটা পাবলিকরে জানাইতেছি না। পাবলিক জানতে পারলে একদিনেই পুস্কুনি খালি হয়া যাবে।'

ঘটনা দেখে আমরা দ্রুত স্থান ত্যাগ করতে উদ্যত হলে কমিটির অন্য একজন সদস্য বলেন, 'ভাইজান যাওনের আগে এই পানি দিয়া হাত দুইটা ধুইয়া যান। আপনের সেপ্টি আমাগো দায়িত্ব।'

৩৮৫ পঠিত ... ১৮:৪৮, মার্চ ২৬, ২০২০

Top