মিরপুরের মেট্রোরেল বিজড়িত এলাকার ছবিকে মঙ্গলের ছবি বলে চালিয়ে দিলো নাসা

৩০৫ পঠিত ... ১৫:০৭, মার্চ ১৮, ২০২০

সম্প্রতি মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা মঙ্গল গ্রহের বেশ কিছু হাই রেজুলেশনের ছবি প্রকাশ করেছে। ১.৮ গিগা পিক্সেল ক্যামেরায় ধারণ করা এই প্যানোরমা ছবির দ্বারা মঙ্গল গ্রহের শার্প পর্বত অংশের মাটি, বালি, নুড়ি পাথরসহ অন্যান্য অনেক কিছুই স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, মঙ্গল গ্রহের রহস্য উন্মোচনে এই ছবি বিজ্ঞানবিশ্বকে আরো অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে।

কিন্তু এই ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ার পর এটিকে নাসার প্রতারণা বলে দাবি করেছেন মিরপুরবাসী। এই ছবিকে মিরপুরের মেট্রোরেল বিজড়িত এলাকার ছবি বলে দাবি করে আসছেন মিরপুর বাসিন্দারা। এরমধ্যে একজন আরও নির্দিষ্ট করে বলেন, 'এটি মিরপুর ১২ নম্বরে যাওয়ার ঠিক আগের মেট্রোরেল বিজড়িত পার্বত্য এলাকার ছবি।'

কেউ কেউ বলছেন, এটি আসলে তালতলা বাজারের আশেপাশের কোথাও থেকে তোলা হয়েছে। কারো কারো ধারণা, নাসার প্রকাশ করা ছবিটি তালতলা বাজার, মিরপুর ১২ নম্বর ও ১০ নম্বর গোলচত্বরের আশেপাশের অঞ্চলের ছবির একটা কম্পাইলেশন।   

মিরপুরের অন্য এক বাসিন্দা হাতের মুঠোয় মেট্রোরেলের ধুলা নিয়ে আমাদের বলেন, 'এই ধুলা, বালি, ইট পাথরের সাথে বছরের পর বছর ধরে বসবাস করছি। এরা আমাদের আত্মার সাথে মিশে গেছে। শুধু ছবি না ভাই, এই মাটির ঘ্রাণও আমরা চিনি।'

তিনি আরো বলেন, 'নাসার দেয়া ছবিটি জুম করলেই পানি গড়িয়ে যাওয়ার দাগ সহ বেশ কিছু শুকনো পথ দেখবেন। এই পথগুলো দেখে কি আপনার মনে হয় না, গেলো বর্ষার শেওড়াপাড়ার পানিই এই পথ দিয়ে গড়িয়ে গেছে? তারপরও আপনারা বলবেন এই ছবি শেওড়াপাড়ার না, মঙ্গলের?'

অন্যদিকে মিরপুরবাসী একজন বুজুর্গ মুফতি আরেক মনোয়ার বলেন, 'আমি মঙ্গলের হাই রেজুলেশন ছবি দেখেছি। আমার কাছে মনে হয়েছে মিরপুর।'

এই ছবি কি আসলেই মঙ্গলের নাকি মিরপুরের? মিরপুরবাসীর দাবির সত্যতা যাচাইয়ের জন্য নাসার কাছে জানতে চাইলে নাসা আমাদের জানান, 'মঙ্গলে তো মিরপুর নামে কোন স্থান নাই! তাছাড়া নামকরণও আমরা শুরু করিনি। তবে মেট্রোরেল নিয়ে মিরপুরের আত্মত্যাগের কথা আমরা জানি। তাদের সম্মানে মঙ্গলের সবচেয়ে বিধ্বস্ত অঞ্চলের নাম অবশ্যই মিরপুর রাখা হবে।'

৩০৫ পঠিত ... ১৫:০৭, মার্চ ১৮, ২০২০

Top