'কে হবে মাসুদ রানা'র অডিশন পার করতে পারেননি লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও

৩০১৭ পঠিত ... ১৩:৫৭, সেপ্টেম্বর ০৩, ২০১৯

বাংলা সাহিত্যের অন্যতম জনপ্রিয় গোয়েন্দা চরিত্রটি কাজী আনোয়ার হোসেনের সৃষ্টি ‘মাসুদ রানা’। সম্প্রতি চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া ঘোষণা দিয়েছে মাসুদ রানা চরিত্রটি নিয়ে একাধিক সিনেমা নির্মাণের, আর মাসুদ রানা চরিত্রের জন্য একেবারে নতুন মুখ খুঁজতে আয়োজন করা হয়েছে রিয়েলিটি শো ‘কে হবে মাসুদ রানা’। এই রিয়েলিটি শো-এর অডিশনের কিছু ভিডিও ইন্টারনেটে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। টুকরো সেসব ভিডিওতে দেখা যায়, মাসুদ রানা হতে চাওয়া তরুণদের নানান কটু বা আক্রমণাত্মক কথা বলে অপদস্থ করা হচ্ছে। কোনো কোনো প্রতিযোগীর সাথে প্রাথমিক পর্যায়ের বিচারকদের আচরণ একটু বেশিই রূঢ় বলেই মনে করেছেন নেটিজেনরা। অডিশন পর্যায়ের বিচারক ইফতেখার আহমেদ ফাহমি, মোস্তফা কামাল রাজ, সাফায়েত মনসুর রানা, জাকিয়া বারী মম, শবনম ফারিয়াদের নিয়ে চলছে বিস্তর আলোচনা-সমালোচনা।

এরই মধ্যে জানা গেছে একটি বিস্ময়কর তথ্য। 'কে হবে মাসুদ রানা'র অডিশনে এসেছিলেন আর কেউ নয়, টাইটানিকের কল্যাণে সারা বাংলাজুড়ে 'জ্যাক' নামে পরিচিত সময়ের সেরা অভিনেতাদের একজন, লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও! তবে বাংলার হাজারো তরুণের মতো এই অডিশন পর্ব পার করতে পারেননি তিনিও! 'জ্যাক ডসন' নামের নিজের একটি পপুলার ফেক আইডি থেকে ডিক্যাপ্রিও এই অবিস্মরণীয় তথ্যটি জানান।

দুঃখ ভারাক্রান্ত হরফে তিনি লেখেন, 'খুব ইচ্ছা ছিল, মাসুদ রানা হবো। অস্কার জেতা তো ডান। টারান্টিনোর মুভিও করলাম। তাই ইচ্ছা ছিল এবার একটা কমার্শিয়াল একশান ঘরানার সিনেমা করবো। এত জোস সব সিনেমা করলাম, অথচ বাংলাদেশের মানুষ আমাকে এখনো ওই জ্যাক নামেই চেনে। তাই ভেবেছিলাম, বাংলাদেশে মার্কেট তৈরি করব। কিন্তু হায়, চিল্লায়ে তো মার্কেট পাওন যাইব না।'

এছাড়াও সেই পোস্টে তিনি লেখেন অডিশনের অভিজ্ঞতার কিছু অংশ, 'ভেবেছিলাম বাংলাদেশি সিনেমা যখন, অডিশনে নিশ্চয়ই টিকবো। খুবই কনফিডেন্ট ছিলাম। কিন্তু অডিশন রুমে ঢুকতেই ফাহমি স্যার বললেন, তুমি কি ডিক্যাপ্রিওর লুক এলাইক? তার মতো পার্ট মাইরা আইছো ক্যান? আমিই ডিক্যাপ্রিও, তা জানানো মাত্র ফাহমি স্যার অট্টহাসি হেসে বলেন, তুমি ডিক্যাপ্রিও হইলে আমি কুইন্টিন টারান্টিনো... হাহাহা!'

অডিশনে জাজদের মন্তব্য বিস্মিত করেছে ইনসেপশন-শাটার আইল্যান্ড খ্যাত এই তারকাকেও। 'প্রথমেই ফাহমি স্যার আমার ব্লন্ড চুলের সমালোচনা করে বলেন, "চুল হলুদ করছো ক্যান? চেহারা দেখছো নিজের কেমন দেখাইতেছে? পাটের আঁশ মাথায় দিয়া সে মাসুদ রানা হইতে আসছে।" এরপর পাশ থেকে ফারিয়া ম্যাম বলেন, "জ্যাকেট পরে আসছো কেন? মাসুদ রানাকে কোনো বইয়ে জ্যাকেট পরতে দেখছো?"

এই পর্যন্ত লেখার পর ডিক্যাপ্রিও একটি স্যাড ইমো ব্যবহার করেন। আরও লেখেন, 'আমি ফারিয়া ম্যামকে বললাম, ম্যাম বইয়ে তো কাউকে দেখা যায় না। বলা মাত্র ফাহমি স্যার উত্তেজিত হয়ে বলেন, "কয়টা মাসুদ রানা পড়ছো? এই ছেলে, হাইট দেখছো নিজের? মাসুদ রানারে কি তোমার এত শর্ট মনে হয়? সাত ফুট লম্বা হও আগে, এরপর আসো।" সেই সময় পাশের রুম থেকে মম ম্যাম আর রানা স্যার এসে আমাকে বলেন এন্টারটেইন করতে। আমি টাইটানিকের একটি দৃশ্যের অভিনয় দেখালে আমাকে মম ম্যাম বলেন, "টাইটানিক ছাড়া তো মনে হয় আর কোনো সিনেমা দেখো নাই। মাসুদ রানা কি টাইটানিক? এইভাবে একটা শোতে শুধু চেহারা দেখাতে আসার কোনো মানে হয় না।"

এখানেও শেষ নয়। পাশের রুম থেকে মোস্তফা কামাল রাজ স্যার এসে লিওর ঘাড়ে হাত রেখে বলেন, 'সবাই মাসুদ রানা হইতে চায় রে ভাই। কিন্তু তুমি সেইটা না।'

এ পর্যন্ত লেখার পর তিনি একটি কান্নার ইমো ইউজ করেন।

তবে হতাশা প্রকাশের পাশাপাশি শেষ পর্যন্ত কে মাসুদ রানা হয় আর সিনেমাটিই বা কেমন হয় তা দেখার তীব্র আগ্রহ প্রকাশ করেন লিওনার্দো। তিনি লেখেন, 'অডিশন থেকে বের হয়ে আমার মনে একটাই প্রশ্ন এসেছে, আদৌ কি কেউ হবে মাসুদ রানা? জানি না তারা কত ভালো কাউকে খুঁজছে। ড্যানিয়েল ক্রেগ ভাইকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, তিনিও নাকি ইন্টারেস্টেড ছিলেন। কিন্তু অডিশনের ভিডিও দেখে তিনিও (সম্ভবত হাইট নিয়ে মন্তব্যের ভয়েই) এমুখো হননি। মাসুদ রানা সিনেমাটি দেখার জন্য মুখিয়ে আছি। দেখি, এমন 'সুনিপুণ' বাছাইয়ের পর ফাইনালি কে হয় মাসুদ রানা।'

তবে কমেন্টে একজন 'সিনেমার বাজেট ৫০ কোটি টাকা, বিগ বাজেট সিনেমা ভাই, ভালোই হইব' এমন লিখলে ডিক্যাপ্রিও বিস্মিত হয়ে রিপ্লাই করেন, 'কী? ইজন্ট ইট ফিফটি মিলিয়ন ডলার? তবে আমি ভুল পথে এগোলাম?'

সিনেমার মূল বাজেট জানতে পারার মানসিক ধাক্কা সামলাতে না পেরেই বোধহয় তিনি দ্রুত 'জ্যাক ডসন' আইডিটি অফ করে দেন।

৩০১৭ পঠিত ... ১৩:৫৭, সেপ্টেম্বর ০৩, ২০১৯

Top