পুকুর খননের প্রশিক্ষণ নিতে বিদেশে গিয়ে পুকুর চুরির প্রশিক্ষণটাও দিয়ে আসবেন নাকি?

১২৫ পঠিত ... ১৬:৫৫, আগস্ট ২৯, ২০১৯

বরেন্দ্র অঞ্চলে ভূ-উপরিস্থ পানির ব্যবহার বাড়াতে পুকুর ও দীঘি খনন-পুনঃখনন করতে চায় সরকার। এজন্য নেয়া হয়েছে ৪২ মাস মেয়াদি একটি প্রকল্প। এ প্রকল্পের খনন কার্যক্রমের প্রশিক্ষণ নিতে বিদেশে যাবেন ১৬ জন। এতে খরচ হবে ১ কোটি ২৮ লাখ টাকা। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ১২৮ কোটি ১৮ লাখ ৭৫ হাজার টাকা, যার পুরোটাই সরকারি অর্থায়নে করা হবে। খবর: বণিকবার্তা।

পুকুর খননের প্রশিক্ষণ নিতে বিদেশ যাওয়া, তাও আবার ১৬ জনের! এটা ঠিক কেন প্রয়োজন, তা বুঝে উঠতে পারেননি অনেকেই। তবে সরকারি কর্মকর্তারা নিশ্চয়ই হুদাই ঘুরতে বিদেশে যাবেন না! পুকুর খননের ট্রেনিং নিতে বিদেশ কেন যেতে হয়, তা জানতে আমরা যোগাযোগ করেছিলাম এক পুকুর বিশেষজ্ঞের সাথে। তিনি জানান, 'পুকুর কাটা কোনো সাধারণ কাজ না। এটা একই সাথে একটা আর্ট এবং সাইন্স। কোন জায়গার পুকুরের আকৃতি কেমন হবে, বৃত্তাকার, আয়তাকার, ত্রিভুজাকার নাকি ট্রাপিজিয়াম? এটা শিখতে আপনাকে ভালো জ্যামিতি জানতে হবে। পানি কি টলটলে হবে না ঘোলা হবে, তা জানতে আপনাকে শিখতে হবে ফ্লুইড মেকানিক্স। পুকুরে ভেতরের পরিবেশ কি শান্ত থাকবে না হৈচৈ থাকবে তা নিয়ন্ত্রণে জানতে হবে যথেষ্ট বায়োসাইন্স। পুকুরের কোন পাম্প দিয়ে পানি তুললে ভালো, তা জানতে আপনাকে ফিজিক্সের উপরও জ্ঞান লাভ করতে হবে। শুধু তাই না, রকেট সাইন্সটাও শিখে রাখলে তা পুকুর কাটার কাজটিকে আরও সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে তুলতে পারে।'

প্রশিক্ষণ তো ছোট ব্যাপার, যথাযথভাবে পুকুর কাটার প্রশিক্ষণ পেতে ঐ ১৬ জন কর্মকর্তাকে অক্সফোর্ডে 'পুকুরসাইন্স' ডিপার্টমেন্টে অনার্স কোর্স করে আসার পরামর্শও দেন এই বিশেষজ্ঞ। এমন কোনো ডিপার্টমেন্ট না থাকলে তা দ্রুত খোলার দাবিও জানান তিনি।

তবে সাধারণ মানুষ এই পুকুর কাটার কাজে কী এমন জটিলতা আছে যা শিখতে বিদেশ যেতে হয়, তা বুঝে উঠতে পারছে না এখনও। কার্জন হলের পুকুরপাড়ে দাঁড়িয়ে একজন বলেন, 'ঢাকার পিচঢালা রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি করে পুকুর বানায় দেয় যারা, তারা কোথায়? এদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নিলেই তো পারে! এরা হাত লাগাইলে পুরা বরেন্দ্রভূমি খুইড়া বরেন্দ্রসাগর বানায় দেবে! এদেরকে তো বরং আরও বিদেশে রপ্তানি করলে ভালো হয়।'

তবে নাম বললে চাকরি থাকবে না টাইপ একজন ধারণা করছেন, শুধু প্রশিক্ষণ নিতে নয়, বরং ১৬ জন কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ দিতে যাচ্ছেন, 'পুকুর খননের কাজে আমাদের শেখার কিছু আছে কিনা আমি জানি না। তবে পুকুরচুরিতে সারা বিশ্বে আমরাই বেস্ট। শুধু পুকুর কেন, গোটা বড়পুকুরিয়ায় এদেশে চুরি হয়ে যায়। পুরো প্রকল্পের যা বাজেট দেখে মনে হলো, মূলত বিদেশিদেরকে পুকুরচুরির প্রশিক্ষণ দিতেই তারা যাচ্ছেন। বিদেশিদের আমাদের কাছ থেকে অনেক শেখার আছে।'

১২৫ পঠিত ... ১৬:৫৫, আগস্ট ২৯, ২০১৯

Top