বাংলাদেশে ডিসি দর্শক বেশি হওয়ায় হতাশায় মুষড়ে পড়েছে মার্ভেল

১৪৩ পঠিত ... ১৬:৪৬, আগস্ট ২৫, ২০১৯

ডিসির কাছে বাংলাদেশের বিশাল বাজার হারানোর করছে সুপারহিরো চলচ্চিত্র ফ্র্যাঞ্চাইজি মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্স। গত ২২ আগস্ট থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ডিসি দর্শকদের সংখ্যা জ্যামিতিক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় তারা এই ধারণা করছেন। 

সুপারহিরো সিনেমার দুই জগত মার্ভেল ও ডিসির মধ্যকার দ্বৈরথ কমিকবুক ফ্যানদের বাইরের মানুষেরও অজানা নয়। দু’টি ফ্র্যাঞ্চাইজি থেকেই পাল্টাপাল্টি চমকপ্রদ সিনেমা রিলিজ দিয়ে প্রতিযোগিতা টিকিয়ে রাখার ব্যাপারটা নিয়েও তাদের মাঝে খুব একটা রাগঢাক নেই। তবে অ্যাভেঞ্জার সিরিজ শুরু হওয়ার পর থেকে মার্ভেল একের পর এক হিট সিনেমা দিয়ে দর্শক ও সমালোচকদের মন জয় করতে পারলেও ডিসি সুপারহিরো মুভি নির্মাণের প্রতিযোগিতায় বেশ মোটা দাগেই পিছিয়ে যায়।

সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও মার্ভেল ভক্তরা নতুন সিনেমার রিলিজ পাওয়া মাত্রই হুমড়ি খেয়ে পরে সিনেমা হলে। মার্ভেলের শেষ অ্যাভেঞ্জার সিরিজের সিনেমার টিকেট পেতে ভক্তদের ভিড়ে প্রেক্ষাগৃহ ভেঙ্গে পড়ার দশা হয়েছিল।  কিন্তু ডিসির সিনেমা বারবার হতাশ করে বলে তা নিয়ে ইয়হখুব একটা উচ্চবাচ্য শোনা যায় না। কিন্তু হঠাৎ করেই গত ২২ আগস্ট রাত থেকে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ বদলে যায়। 

সেদিন রাতেই ফেসবুকে কোন পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই ডিসির একটি ফুটেজ রিলিজ পায়। এই ফুটেজ বিশ্লেষণ করে eআরকি সদস্যরা জানতে পারে, সম্পূর্ণ নতুন দুই চরিত্র নিয়ে বাংলাদেশের জামালপুরে ধারণ করা হয়েছে এই শর্টফিল্ম (বা ট্রেইলার)। তবে টিপিকাল ডিসি সিনেমার মতো অন্ধকার ও অস্পষ্ট এই ভিডিওটির অ্যাকশন স্পষ্ট ছিলো না। তবুও এই ফুটেজ ভাইরাল হয়ে বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের নিউজ ফিডে ছড়িয়ে পড়ে। উল্লেখ্য, নোলানের ব্যাটম্যান ট্রিওলজির পর ডিসির কোন কিছুই এতটা জনপ্রিয় হয়ে উঠে নি। 

অনেকেই ধারণা করছেন, এইটি ডিসির নতুন কোন সিনেমার সারপ্রাইজ ট্রেলার। অনেকে আবার এটিকে আনরিলিজড পোস্ট ক্রেডিট সিন বলেও দাবি করছেন। তবে ইতিমধ্যেই এই সিনেমাটি দেখার জন্য দেশবাসীর মনে প্রবল আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। তাদের অনেকেই বিভিন্ন মুভি ডাউনলোড সাইটে গিয়ে হন্যে হয়ে ‘জামালপুর ডিসি’ ফুল মুভির লিংক খুঁজছেন বলে একটি অজানা সূত্র আমাদের জানায়। 

ডিসির আচমকা এমন সাফল্যে মুষড়ে পড়া মারভেলের এক শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা eআরকির কাছে আক্ষেপ প্রকাশ করে বলেন, ‘বিলিয়ন ডলার দিয়ে সিনেমা বানাই আমরা। তবুও বাংলার জনমানুষের মন জয় করতে পারলাম না। অথচ ডিসির একটা ছোট্ট ক্লিপেই যে সাড়া পড়ে গেছে। সিনেমা বের হইলে তো বাংলাদেশেই ব্লকবাস্টার হয়ে যাবে!’ অন্যদিকে ডিসি কমিকের তরফ থেকে এই ভিডিওর ব্যাপারটি শুরু থেকেই অস্বীকার করে এসেছে। অনেক চেষ্টা করেও ডিসির কারো সাথে যোগাযোগ করতে পারেনি eআরকি।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সিনেমা বিশেষজ্ঞ জানান, ‘বাংলাদেশে ঠিক কী ধরনের ভিডিও বা সিনেমা দর্শকদের আকৃষ্ট করে, মার্ভেল নিশ্চয়ই ট্যাঁ বুঝতে পেরেছে। সামনের দিনগুলোতে তারা সেই আঙ্গিকেই সিনেমা নির্মাণ করে হলে মুক্তি না দিয়ে বরং অনলাইনে ছড়িয়ে দেবে বলে ধারণা করা যেতে পারে।’

১৪৩ পঠিত ... ১৬:৪৬, আগস্ট ২৫, ২০১৯

Top