ম্যাচ ফিক্সিং ধরার জন্য বাংলাদেশি ফেসবুকারদের নিয়োগ দিচ্ছে আইসিসি

২৯২ পঠিত ... ১৯:২১, জুলাই ০১, ২০১৯

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের ব্যাপারে সবসময়ই কঠোর আইসিসি। প্রতিটা ম্যাচেই থাকে আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিট 'আকসু'র কড়া নজর। কিন্তু তারপরও এই বিশ্বকাপে কোনো ম্যাচ পাতানোর প্রমাণ পাচ্ছে না আইসিসি। তাই বাধ্য হয়ে শেষ পর্যন্ত তারা শরণাপন্ন হতে যাচ্ছে বাংলাদেশী ফিক্সিং বিশেষজ্ঞ ফেসবুক ইউজারদের। যারা শুধুমাত্র ম্যাচের রেজাল্ট আর প্লেয়ারদের বডি ল্যাঙ্গুয়েজ দেখেই বলে দিতে পারে কোন কোন ম্যাচ পাতানো। এমনকি কোন কোন প্লেয়ার টাকা খেয়েছে, কে বেশি আর কে কম টাকা পেয়েছে সবই চোখ বন্ধ করে বলে দিতে পারে এই বিশেষজ্ঞরা।

আইসিসির দূর্নীতি দমন শাখা আকসুর চেয়ারম্যান এই সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে eআরকিকে জানায়, 'আমরা বহু গবেষণা আর তদন্ত করেও যে জিনিস প্রমাণ করতে পারি না, সেটা চোখের দেখাতেই বলে দিতে পারে এই অদ্ভুত লোকেরা। এরা অতিমানবিক ট্যালেন্ট। অনেকটা বিরাট কোহলি বা মিচেল স্টার্ক মাপের প্রতিভা এই বাঙালি ফেসবুক ইউজাররা। এদেরকে সঠিকভাবে ব্যবহার করা হলে সারা বিশ্বে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের পরিমাণ অত্যন্ত বেড়ে যাবে বলে আমার ধারণা। কারণ এদের কাছে মোটামুটি নব্বই শতাংশ ম্যাচই পাতানো মনে হয়। শুধুমাত্র এদের সাপোর্ট করা দলগুলো জিতলেই সেই ম্যাচটা সুষ্ঠু হয়।'

বাংলাদেশের এই ফিক্সিং বিশেষজ্ঞদেরকে বিভিন্ন দেশের ক্রিকেট লিগ কমিটির কাছে রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা। শুধু ক্রিকেটই না, এই বিশেষজ্ঞরা ফুটবল, হকি, কাবাডি, লুডু, ক্যারাম, সাতচাড়া, কুতকুতসহ সকল ম্যাচের ফিক্সিং ধরে ফেলতে পারে মাত্র কয়েক মিনিটে। মনোবিজ্ঞানীদের মতে, এমন প্রতিভা অন্যান্য দেশে খুবই রেয়ার। প্রতি ২১০টি দেশের মধ্যে একটি দেশের মানুষের মধ্যে এমন প্রবণতা দেখা যায়।

এমনই একজন ফেসবুক ইউজার কাম ফিক্সিং, আইন, অর্থনীতি, বিমান চালনা, রাজনীতি, অভিনয়, ধর্ষণ, ব্যাটিং ও বোলিং বিশেষজ্ঞের কাছে জানতে চেয়েছিলাম, এই বিশ্বকাপে কতগুলো ম্যাচ ফিক্স করা হয়েছে। জবাবে তিনি আমাদেরকে জানান, 'এইভাবে আন্দাজে তো বলা যায় না যে কয়টা ম্যাচ ফিক্সিং হতেছে। তবে আমরা যদি ফ্যাক্টস বিবেচনা করি তবে এই বিশ্বকাপে আমি যে দলগুলো সাপোর্ট দিয়েছিলাম তারা যে কয়টা ম্যাচে হেরেছে সবই ফিক্স করা হয়েছে।'

আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগে কাজ করতে চান কিনা, এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি 'আইসিসিতে জীবনেও যাব না, শালা ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল' বলে একটা হুংকার দিয়ে একটু নীচু গলায় বলেন, 'বেতন কেমন? টেকা পয়সা তো কম না ওদের, যদি ভালো বেতন দেয় ভাইবা দেখবো।'

২৯২ পঠিত ... ১৯:২১, জুলাই ০১, ২০১৯

Top