IUBATতে পালিত হয়ে গেলো 'গ্র্যাজুয়েশনের বিনিময়ে খাদ্য (গ্র্যাবিখা) কর্মসূচি

২৯০৪ পঠিত ... ২০:৫৫, মার্চ ২৩, ২০১৯

গত ২১ মার্চ (বৃহস্পতিবার) অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ বিজনেস এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজির (আইইউবিএটি) পঞ্চম সমাবর্তন। শহরের অংশ বলে দাবি করা উত্তরার ১৪ নাম্বার সেক্টর খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত সমাবর্তনের একটি ভিডিও ফেসবুকসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিওটিতে দেখা যায়, সমাবর্তন নিতে আসা শিক্ষার্থীরা একটি খাদ্যবোঝাই গাড়ির চারপাশ ঘিরে আছেন। আর গাড়ির ছাদ থেকে এক ব্যক্তি খাবারের প্যাকেট রীতিমত ছুঁড়ে মারছেন চারপাশে। এমন অদ্ভুত ভিডিও দেখে কৌতূহলী eআরকি দল ছুটে যায় উত্তরার পানে।

অনেক সাগর-নদী আর মরুভূমি পেরিয়ে আমরা পৌঁছে যাই উত্তরার সেই খেলার মাঠে। সমাবর্তনের পর একদিন কেটে গেলেও সেখানে আমরা খুঁজে পাই কালো গাউন পরে রোদে ঘেমে নেয়ে যাওয়া অনেককে। জানা যায়, ঘটনার আকস্মিকতা কাটিয়ে না উঠতে পেরে তখনও ঘটনাস্থলে রয়ে গিয়েছিলেন অনেক গ্র্যাজুয়েট। এমনই একজন গ্র্যাজুয়েটের কাছে আমরা জানতে চাই অভূতপূর্ব এই ঘটনার আদ্যোপান্ত। তিনি আমাদের জানান, ‘এইখানে আসলে চলতেছিল গ্র্যাবিখা কর্মসূচি। সেইজন্যই এইরকম আলামত।’ গ্রাবিখার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি আমাদের বলেন ‘গ্র্যাবিখা হইতেছে গ্র্যাজুয়েশনের বিনিময়ে খাদ্য। আমরা গ্র্যাজুয়েশন করছি দেখে কি শুধু এই কাক কালো গাউন আর হ্যাট দিবে? খাদ্যও আমাদের ন্যায্য দাবি।’

 

কিন্তু তাই বলে এমন অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির কারণ কী? এমন প্রশ্নের জবাবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক গ্র্যাজুয়েট বলেন ‘বাংলাদেশে কোনদিন কোন খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি দেখছেন, যেখানে এমন হয় না? আমরা দেশের মানুষের মান রাখছি।’ গাড়ির ছাদ থেকে খাবারের প্যাকেট বিতরণকারী ব্যক্তিটিকে অনেক অনুসন্ধানের পর পাওয়া গেলে, তিনি প্রথমে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। অবশ্য পরে তিনি অফ দ্য রেকর্ডে জানান যে, দীর্ঘদিন দেশব্যাপী বিভিন্ন খাদ্য কর্মসূচিতে থাকার কারণে এসব ব্যাপারে তিনি বেশ অভিজ্ঞ। তবু এত অভিজ্ঞতা থাকা সত্ত্বেও সেদিন তিনি ভড়কে গিয়েছিলেন। তিনি বলেন ‘সেদিন দুপুরে আমি যেন গ্র্যাজুয়েটদের চোখে আমার সর্বনাশ দেখেছিলাম।’  

তবে অনেকেই অভিযোগ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনা নিয়ে। অব্যবস্থাপনার কারণেই গ্র্যাবিখা কর্মসূচিতে এমন অরাজকতা নেমে এসেছিল বলে তারা জানান। চব্বিশ ঘন্টা কেটে গেলেও কিছু না পাওয়া এক গ্র্যাজুয়েট আক্ষেপের সুরে বলেন ‘কলেজে থাকতে এসএসসিতে এ প্লাস পাওয়ার যে সংবর্ধনা দিছিল, সেইটাতেও তো ঠিকঠাক খাবারের প্যাকেট পাইছিলাম। অথচ বিশ্ববিদ্যালয় শেষ কইরা এই অবস্থা! কী লাভ হইল এমন গ্র্যাজুয়েশন কইরা?’

আইইউবিএটিতে সমাবর্তনের এই গ্র্যাবিখা কার্যক্রমের ভিডিওটি দেখে দেশের নানান প্রান্তের সুবিধাবঞ্চিত মানুষেরা (অর্থাৎ ঢাবিয়ানদের ভাষায় বহিরাগতরা) খাদ্যের সন্ধানে ক্যাম্পাসের আশেপাশে ভিড় করছেন, এমনটাও জানা গেছে একটি অবিশ্বস্ত সূত্রে।

২৯০৪ পঠিত ... ২০:৫৫, মার্চ ২৩, ২০১৯

Top