পদ্মা সেতু নিয়ে ১০টি ফ্যাক্ট

১৪০০ পঠিত ... ১৯:১১, জুন ২৫, ২০২২

Padma-shetu-fact

দক্ষিণবঙ্গের মানুষকে রাজধানীর সাথে যুক্ত করবে, গতি আনবে অর্থনীতির- এক যুগ আগে এমন স্বপ্ন নিয়ে পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয় বাংলাদেশ৷ দিন গেছে, বছর গড়িয়েছে, সেই সাথে বেড়েছে নির্মাণ ব্যয়। নদীর বুকে দেশের সবচেয়ে বড় অবকাঠামো বহুল প্রতীক্ষিত স্বপ্নের পদ্মা সেতু আজ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অন্যদিকে গত এক যুগ ধরে পদ্মা সেতু নিয়ে নানা তথ্য মুখস্ত করতে করতে অতিষ্ট বিভিন্ন বিসিএস পরীক্ষার্থীরা। তবে পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য থেকে পিলার সংখ্যা– এসব তথ্য ছাড়াও রয়েছে তাকে নিয়ে নানা অজানা তথ্য, রয়েছে পদ্মা সেতুর ছোট-বড় রেকর্ড আর কীর্তি। বিসিএসের জন্য উপকারি না হলেও আসুন জেনে নেওয়া যাক বাংলাদেশের স্বপ্নের পদ্মা সেতু নিয়ে ১০টি ফ্যাক্ট। 

১# পরিসংখ্যান মতে, আগামী ১০০ বছর ধরে প্রতি সেকেন্ডে এক লাখ ৪০ হাজার ঘনমিটার পানি সাগরে যেতে পারে পদ্মা দিয়ে। এই যে পদ্মা হয়ে এত পানি সাগরে যায়, এটা পুরো পৃথিবীর মধ্যে আমাজন নদীর পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। পদ্মার বুকে দাঁড়িয়ে থাকা পদ্মা সেতুর নিচ দিয়ে যাবে পানির এই অবিরাম স্রোত। তাই ব্যবস্থাটাও তেমন রাখতে হবে যেন পানিগুলো সেতুর নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়ে বঙ্গোপসাগরে যেতে পারে। এই পানি কোনোভাবে যদি আটকা পড়ে তবে বন্যা হবে আপস্ট্রিমে (নদীর পশ্চিম-উত্তর দিকে) এবং একই সাথে এই পানি ব্রিজের ওপর অনেক বেশি প্রেশার বা ধাক্কা দেবে। ফলাফল হিসেবে ঘটতে পারে ব্রিজ ফেইল। এসকল কিছুর কথা মাথায় রেখেই তৈরি হয়েছে আমাদের পদ্মা সেতু। 

২# পদ্মা নদীর পাইলগুলোর উচ্চতা ১২০-১২৮ মিটার। অর্থ্যাৎ একেকটি পাইল প্রায় ৪০ তলা ভবনের সমান! 

এর কারণ, বর্ষাকালে যখন অতিরিক্ত স্রোত থাকে তখন পদ্মা নদী ৬৫ মিটার স্কাওয়ার করে ফেলে, অর্থ্যাৎ নদীর নিচ থেকে ৬৫ মিটার মাটি ধুয়ে চলে যায়। পুরো বিশ্বের কোনো নদীর এত পরিমাণ মাটি ধুয়ে ফেলার সামর্থ্য নেই। তাই বর্ষাকালে পদ্মার সেডিমেন্ট ট্রান্সপোর্টকে প্রতিহত করতে পদ্মা সেতুর পাইলগুলোর আকার হয়েছে এমন বিশাল। ব্রিজ নির্মাণের ইতিহাসে এত গভীরতায় সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর নির্মাণ পৃথিবীর কোথাও হয়নি।

৩# তবে ১২০ মিটার উচ্চতার পাইলগুলো বসানো তো আর চাট্টিখানি কথা নয়। বিশ্বে নাকি এমন উচ্চতার পাইল বসানোর মেশিন পর্যন্ত নেই। তাই শুধুমাত্র পদ্মা সেতুর জন্য জার্মানি থেকে তৈরি করে আনা হয় স্পেশাল ক্রেন, স্পেশাল হ্যামার!

৪# পদ্মা সেতুর আরেক রেকর্ড হলো তার ভূমিকম্প সহ্য করার ক্ষমতা। পদ্মা ব্রিজ রিখটার স্কেলের ৯ লেভেলের ভূমিকম্প পর্যন্ত সহ্য করতে পারবে কোনো জটিলতা ছাড়াই। 

৫# পদ্মা সেতুর স্প্যান ও পিয়েরের (Pier) মাঝে থাকা একেকটি বিয়ারিং (Bearing) প্রায় ১০,৫০০ মেট্রিক টন ওজন বিশিষ্ট। আজ পর্যন্ত পৃথিবীর অন্য কোনো ব্রিজে এত ওজনের বিয়ারিং ব্যবহৃত হয়নি। 

৬# পদ্মা সেতুর কারণে নদী শাসনের আওতায় এসেছে ১৪ কিলোমিটার এলাকা। নদী শাসনের এলাকার ওপর ভিত্তি করলে পৃথিবীতে এমনটি খুঁজে পাওয়া বিরল। 

৭# পদ্মা সেতুর বুক জুড়ে একদিনে ১২,০০০ যানবাহন চলতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে। ২০৩০ সালের মধ্যে এ সংখ্যা ৩০,০০০ ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। 

৮# চীনের বাহিরে চায়নিজদের তৈরি সবচেয়ে বড় সেতু হলো আমাদের পদ্মা সেতু। 

৯# বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরিটাস অধ্যাপক এবং পানি সম্পদ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিশেষজ্ঞ ড. আইনুন নিশাত জানান পদ্মা সেতু নির্মাণকালীন আরো নানা তথ্য। তিনি বলেন, 

‘আমি নদীর ওপর কাজ করেছি, তাই আমরা চেষ্টা করেছি বুঝতে নদী কি চায়, আর সেটাই পালন করতে চেষ্টা করেছি। সেতু দেখলে নদী তার নিচ দিয়ে যেতে চায় না, পাশ কাটিয়ে যেতে চায়।

পদ্মা সেতুর কারণে যাতে ইলিশ মাছ রাগ না করে সেজন্য পাইলকে মাফলার দিয়ে মোড়ানো হয়েছিল। হ্যামার দিয়ে পেটানোর শব্দ যাতে না হয়। পদ্মা সেতুর তলা দিয়ে ইলিশ মাছ যাতায়াত করে। ২০০ ডেসিমেলের ওপরে শব্দ হলে ইলিশ মাছ উল্টো দিকে চলে যায়। আমাদের বলা হয়েছে যেখানে নদীর গভীরতা ৩০ ফুটের বেশি সেখানে মৎস্য মন্ত্রণালয় যদি বলে ইলিশ মাছ যাচ্ছে, তখন কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। ইলিশ মাছের সময় কোনো কাজ করা হয়নি।’ 

১০# পদ্মা সেতুতে তৈরি হবে একটি জাদুঘরও! ২,২৮১টি প্রাণীর নমুনা ও পদ্মা সেতু নির্মাণের পেছনে থাকা সকল প্রকৌশলী ও নির্মাণশ্রমিকের ছবি দিয়ে সাজানো হবে সেই জাদুঘর। 

১৪০০ পঠিত ... ১৯:১১, জুন ২৫, ২০২২

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top