বায়ান্নোর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

১২৩ পঠিত ... ২০:২৫, জানুয়ারি ১২, ২০২২

ju-52

আজ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। ৫১ পেরিয়ে ৫২ বছরে পা দিল এ বিশ্ববিদ্যালয়।  

ষাটের দশকে সমগ্র পূর্ববাংলায় উচ্চশিক্ষার বিস্তার ঘটানোর লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয় বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়। এই দশকেই প্রতিষ্ঠিত হয় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়। কিন্তু দু’টি সমস্যার সমাধান তখনও করা সম্ভব হচ্ছিল না। একটি সমস্যা হলো শিক্ষার্থীদের আবাসন। এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের সকল শিক্ষার্থীদের আবাসনের চাহিদা মেটাতে সক্ষম ছিল না। অপরদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ঢাকার বাইরে হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের চাপ ক্রমেই বেড়ে চলছিল।  

এই দু’টি সমস্যার কথা মাথায় রেখে তখন ঢাকার অদূরে একটি সম্পূর্ণ আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেয়া হয়। প্রথমে গাজীপুরের সালনায় এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়, কিন্তু পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়টির স্থান পরিবর্তন করে নিয়ে আসা হয় সাভারে, ঢাকা- আরিচা মহাসড়কের পশ্চিম পাশে। খাতা কলমে ১৯৭০ সালের সেপ্টেম্বরে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হলেও এর মূল কার্যক্রম শুরু হয় ১৯৭১ সালের ১২ জানুয়ারী। তাই এই দিনটিকেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা দিবস হিসেবে গণ্য করা হয়। শুরুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ‘জাহাঙ্গীরনগর মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়’ দেওয়া হলেও ১৯৭৩ সালে পাশ হওয়া বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাক্টে নামটি পরিবর্তন করে শুধু ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়’ রাখা হয়।

মাত্র ৪টি অনুষদ এবং ১৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে পথচলা শুরু করা এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে ৬টি অনুষদ এবং ৪টি ইন্সটিটিউটের অধীনে রয়েছে ৩৬টি বিভাগ। এতে অধ্যয়নরত আছেন প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ছেলে এবং মেয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য ৮টি করে মোট ১৬টি আবাসিক হল রয়েছে।

প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ধরে রেখেছে তাঁর স্বকীয়তা। দেশের একমাত্র আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে পরিচিতি লাভ করলেও, এটিই দেশের একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে প্রতি বছর সমান সংখ্যক ছেলে এবং মেয়ে শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ লাভ করে থাকে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা এবং মানবিকী অনুষদের অধীনের রয়েছে দেশের একমাত্র প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ।

দেশের সাংস্কৃতিক রাজধানী হিসেবে পরিচিত এই বিশ্ববিদ্যালয় সবসময়ই শিল্প সাহিত্যের কদর করে এসেছে। নাট্যাচার্য সেলিম আল দ্বীনের হাত ধরে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশের প্রথম নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের যাত্রা শুরু হয়। তাঁরই রচিত নাটক ‘শকুন্তলা’ মঞ্চায়নের মাধ্যমে ১৯৮০ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চের উদ্বোধন করা হয়।

ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনেও প্রতিনিয়ত অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়কে ছাড়িয়ে যাচ্ছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। ২০১০ সাল থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত হয়ে আসছে প্রজাপতি মেলা। শিশু কিশোরদের জন্য প্রজাপতি বিষয়ক ছবি আঁকা প্রতিযোগিতা, জীবন্ত প্রজাপতি এবং প্রজাপতি বিষয়ক বিভিন্ন ডকুমেন্টরি প্রদর্শন ছাড়াও আরও নানান কার্যক্রম হয়ে থাকে এই মেলায়। পাখি সংরক্ষণে গণসচেতনা তৈরির লক্ষ্য নিয়ে ২০০০ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে পাখি মেলা। বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রাণিবিদ্যা বিভাগ তাদের সক্রিয় তত্ত্বাবধানে পালন করে আসছে এ দুটি উৎসব। বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকটি স্বচ্ছ হৃদে প্রতিবছর আগমণ ঘটা অতিথি পাখির নিরাপত্তার জন্যও নানান উদ্যোগ গ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

তবে এসব আয়োজনের ছাপিয়ে যে উৎসবের নাম এখন সবচেয়ে বেশি শোনা যায়, সেটি হলো ‘হিম উৎসব’। শীতকালকে বরণ করে নিতে ২০১৬ সাল থেকে প্রতিবছর এই বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন দিন ব্যাপী এ উৎসবের আয়োজন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম একটি সংগঠন ‘পরম্পরায় আমরা’ এই আয়োজনের মূল কুশীলব। ঘাটুগান, গম্ভীরা, শাস্ত্রীয় সংগীত, আলোকচিত্র প্রদর্শনী, কনসার্ট ইত্যাদির মাধ্যমে দেশের নিজস্ব সংস্কৃতিকে আপন করে নেওয়াই এই আয়োজনের প্রধান উদ্দ্যেশ্য।

গোটা পৃথিবীর মতো প্রায় সারাবছরই উৎসবের ছোঁয়া লেগে থাকা এই ক্যাম্পাস আক্রান্ত হয়েছে করোনা মহামারীতে। ফলে ২০২০ সাল থেকেই বিঘ্নিত হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টির নিয়মিত কার্যক্রম। ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে পুনরায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হলেও করোনায় আক্রান্তের হার বেড়ে যাওয়ায় চলতি মাসে পুনরায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করতে বাধ্য হয় প্রশাসন। ফলে এবারও সীমিত পরিসরে অনলাইনে প্রতিবার্ষিকী উদযাপন করেছে বিশিষ্টজনেরা। হিম উৎসব, পাখি উৎসব এবং প্রজাপতি উৎসব নিয়েও দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২ বছরে পদার্পণের দিনে একটা কামনা- অচিরেই কেটে যাক এই মহামারী, এবং জাহাঙ্গীরনগর ফিরে পাক তার পরিচিত চেহারা।’

লেখা-সজীব উজ জামান শান্ত

১২৩ পঠিত ... ২০:২৫, জানুয়ারি ১২, ২০২২

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top