২৫ ডিসেম্বর কেন ক্রিসমাস উদযাপন করা হয়?

৩০৯৫ পঠিত ... ০৪:৫০, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০

অধিকাংশ খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী ক্রিসমাস বা বড়দিন ‍উদযাপনের জন্য ২৫ ডিসেম্বরের বাইরে অন্য কোনো দিনের কথা নিশ্চয়ই ভাবতে পারেন না। কিন্তু বড়দিন সবসময় ডিসেম্বরের ২৫ তারিখে উদযাপিত হতো না। এমনকি, খ্রিস্ট ধর্মের জন্মের প্রথম তিনশ বছর যিশু খ্রিস্টের জন্মদিনই উদযাপন করা হতো না। তখন খ্রিস্টানদের বছরে সবচেয়ে বড় হলিডে ছিল এপিফ্যানি, জানুয়ারির ৬ তারিখে। রোমান ক্যালেন্ডার অনুসারে যিশু খ্রিস্টের জন্মের ৩৩৬ বছর পর প্রথমবারের মতো তাঁর জন্মদিন উপলক্ষে হলিডে উদযাপন করে খ্রিস্টানরা।

কিন্তু যিশু খ্রিস্ট (যিনি মুসলমানদের কাছে ঈসা নবী হিসেবেই বেশি পরিচিত) কি আসলেই ২৫ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেছিলেন?

সম্ভবত না। বাইবেলে তাঁর জন্মের দিন-তারিখের ব্যাপারে স্পষ্ট কিছু উল্লেখ নেই। বরং তাঁর জন্মের সময়ের ব্যাপারে যেসব ইঙ্গিত করা হয়েছে, সেগুলো পরস্পর সাংঘর্ষিক। যেমন- মেষপালক এবং মেষের কথা উল্লেখ আছে। এটা দেখে মনে হতে পারে তিনি বসন্তকালে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তৃতীয় শতাব্দীর শেষদিকে চার্চ অফিশিয়ালরা যখন ২৫ ডিসেম্বর তারিখটি নির্ধারণ করেছিলেন, তখন তাঁরা চেয়েছিলেন- রোমানদের কৃষি দেবতা স্যাটার্ন এবং আলোর দেবতা মিথ্রাকে সম্মান জানানোর জন্য পালিত 'পাগান' উৎসব আর যিশুর জন্মদিন উৎসব যেন একই সঙ্গে হয়। এর মূল উদ্দেশ্য ছিল পাগানদের মধ্যে ক্রিস্টান ধর্মের গ্রহণযোগ্যতা আরও বাড়ানো এবং পুরো সাম্রাজ্যে খ্রিস্টধর্মের একটা অফিশিয়াল স্বীকৃতি দাবি করা। 

পরবর্তী কয়েক শতাব্দীতে বড়দিনের উৎসব সারা পৃথিবীতে, বিশেষ করে পাশ্চাত্যের দেশগুলোতে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। কিন্তু এখনো অনেক খ্রিস্টান এপিফ্যানি এবং ইস্টারকে ক্রিসমাসের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন। অনেক খ্রিস্টান পণ্ডিতরা তো বড়দিনের উদযাপনকে নিষিদ্ধিই করেছিলেন। তাঁদের মতে, বড়দিনের উৎসবে যে গাছে আলোকসজ্জা করা কিংবা উপহার দেওয়ার প্রচলন, এটা তো পাগানিজম থেকেই এসেছে। যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম দিকে বড়দিন উদযাপনকে ব্রিটিশ ঐতিহ্য বলে মনে করা হতো। ১৮৭০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে বড়দিনকে সরকারি ছুটির দিন হিসেবে ঘোষণা করা হয়। 

৩০৯৫ পঠিত ... ০৪:৫০, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top