সিরাজুদ্দীন হোসেন : একাত্তরের ডিসেম্বরে বুদ্ধিজীবী নিধনযজ্ঞের প্রথম শিকার ছিলেন যিনি

৯৭ পঠিত ... ২১:২৯, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

শহীদ সিরাজুদ্দীন হোসেন ছিলেন দৈনিক ইত্তেফাকের কার্যনির্বাহী ও বার্তা সম্পাদক। এ দেশে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার জনক তিনি। ক্ষুরধার লেখনীর মাধ্যমে তিনি এ দেশের বঞ্চিত মানুষের কথা সংবাদপত্রের পাতায় ফুটিয়ে তুলেছিলেন। মহান ভাষা আন্দোলন, যুক্তফ্রন্টের নির্বাচন, ছয় দফা আন্দোলন, ঊনসত্তরের গণঅভ্যূত্থান, সত্তরের নির্বাচন ও একাত্তরে অবরুদ্ধ নগরী ঢাকায় তাঁর ক্ষুরধার লেখনী তাঁকে বিশিষ্ট্ করেছে।

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ইত্তেফাকের পাতায় তার সাহসিকতাপূর্ণ সম্পাদকীয় ও রিপোর্টের কারণে জামায়াতে ইসলামীর মুখপত্র দৈনিক সংগ্রাম তাকে হুমকিও দিয়েছিল। 'ঠগ বাছিতে গা উজাড়', 'অধুনা রাজনীতির কয়েকটি অধ্যায়', 'এতদিনে' ইত্যাদি তার প্রকাশিত প্রবন্ধ ও সম্পাদকীয়, যা পাকিস্তান রাষ্ট্রের ভবিষ্যৎহীনতার ইঙ্গিত দেয়। ১৯৪৭ সালের দেশভাগ নিয়ে লেখা তার বই 'ইতিহাস কথা কও' বা, 'লুক ইন টু দ্য মিরর' আমাদের ইতিহাসের এক উল্লেখযোগ্য সংযোজন। ‘চিনিল কেমনে’ কিংবা ‘সুকুইজ্জ্যা কডে’ ধরনের অসংখ্য শিরোনাম তিনি করেছেন, যেগুলো এখনও আলোচনার বিষয় হয়ে আছে।

একাত্তরের ১০ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও তাদের এ দেশীয় দোসর আলবদর ও রাজাকার বাহিনীর সদস্যরা সিরাজুদ্দীন হোসেনকে রাজধানীর চামেলীবাগের বাড়ি থেকে অপহরণ করে। তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। তিনিই ছিলেন একাত্তরের ডিসেম্বরে বুদ্ধিজীবী নিধনযজ্ঞের প্রথম শিকার।

৯৭ পঠিত ... ২১:২৯, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top