ভাষাবিদ ও দার্শনিক নোয়াম চমস্কির ১৪টি উক্তি

৯৪৭ পঠিত ... ১৬:২৬, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯

ভাষাবিজ্ঞানী, দার্শনিক, শিক্ষাবিদ, সমাজ সমালোচক, ঐতিহাসিক, সক্রিয় রাজনৈতিক কর্মী ইত্যাদি নানান পরিচয়ে পরিচিত মানুষটি হলেন নোয়াম চমস্কি। জন্মেছিলেন ১৯২৮ সালের ৭ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ায়। বর্তমানে ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির (এমআইটি) এমিরেটাস অধ্যাপক এবং ইউনিভার্সিটি অফ অ্যারিজোনার সম্মানিক অধ্যাপক হিসেবে বিশ্বখ্যাত এই দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যুক্ত আছেন।

ভাষা নিয়ে অসংখ্য গুরুত্বপূর্ণ তাত্ত্বিক কাজ করা চমস্কি গত ছয় দশকের বেশি সময় ধরে রাষ্ট্র, রাজনীতিবিদ ও কর্পোরেশনের কঠোর সমালোচক। পাশাপাশি মুক্তচিন্তার পক্ষে ও কণ্ঠরোধের বিপক্ষে তার কলম সবসময়ই ছিল তীক্ষ্ণ, কণ্ঠ বরাবরই জোরালো। বেশ অনেকদিন ধরেই নোয়াম চমস্কি পৃথিবীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একজন পাবলিক ইন্টেলেকচুয়াল। মানুষের মুক্তি, জীবন, শিক্ষা, দর্শন ও রাজনীতি নিয়ে চমস্কির কিছু উক্তিই আজ থাকছে eআরকির পাঠকদের জন্য।

 

১#
অপছন্দের লোকেদের বাকস্বাধীনতায় আমরা যদি বিশ্বাস না করতে পারি, তাহলে আমরা আসলে বাকস্বাধীনতায় বিশ্বাসই করি না।

২#
জনগণকে প্যাসিভ এবং বাধ্যগত করে রাখার স্মার্ট উপায় হচ্ছে, মতামতের গ্রহণযোগ্যতার সীমাটা কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা, কিন্তু সেই সীমানার ভেতরে তুমুল বিতর্ক করার সুযোগ দেয়া।  

৩#
চাপিয়ে দেয়া অজ্ঞতার নাম প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা।   

৪#
মনে রাখা প্রয়োজন, যারা রাজনৈতিক ক্যাম্পেইন ডিজাইন করে তারা একইসঙ্গে টুথপেস্ট আর গাড়িও বিক্রি করে।

৫#
রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক এলিটদের সামাজিক নিয়ন্ত্রণের মূল উপায় হলো, অদরকারি, তুচ্ছ তথ্যের বিরামহীন বন্যায় পাবলিকের মনোযোগ গুরুত্বপূর্ণ ও দরকারি ইস্যুগুলো থেকে সরিয়ে নেয়ার কৌশল।

৬#
কেউ যদি ভাবে যে আমি যেহেতু এমআইটির অধ্যাপক তাই আমার কথা শোনা উচিত, এটা হাস্যকর রকম বোকামি। কোনো কথা বা বক্তব্যে সারবত্তা আছে কিনা সেটি দেখে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, যে বলছে তার নামের সাথে কত বড় ডিগ্রি আছে তার ভিত্তিতে না।

৭#
নুরেমবার্ড আইনের প্রযোগ যদি প্রকৃতপক্ষে থাকত, যুদ্ধোত্তর প্রতিটি আমেরিকান প্রেসিডেন্টকে ফাঁসিতে ঝুলতে হতো।

৮#
রাষ্ট্রীয় প্রোপাগান্ডা যখন শিক্ষিত শ্রেণির দ্বারা সমর্থিত হয় এবং সেই প্রোপান্ডার বাইরে কোনো স্বাধীন চিন্তাকে প্রকাশ করতে দেয়া হয় না, তার প্রভাব হয় ভয়াবহ। হিটলার এবং আরও অনেক ডিক্টেটরের কাছ থেকে এই শিক্ষা নেয়া, যা এখন পর্যন্ত চলছে।

৯#
সিম্পল বিষয়ের মধ্যেও অবাক হতে পারার সামর্থ্যই আবিষ্কার।

১০#
লোকে সাধারণত ক্ষমতার পেছনে লাইন ধরে।

১১#
আমার মনে হয় ব্যক্তিকে মডেল হিসেবে না দেখে বরং কর্ম, চিন্তা আর নীতিকে মডেল হিসেবে নেয়া উচিত।

১২#
বিজ্ঞাপনের কাজ হলো বাজার ধ্বংস করা।

১৩#
কর্পোরেশনগুলো ও তাদের রাজনৈতিক মিত্ররা শ্রমিক শ্রেণির সঙ্গে প্রতিনিয়ত যুদ্ধে লিপ্ত।   

১৪#
আগামী বছরগুলোতে বাংলাদেশের নিচু ভূমির কোটি কোটি মানুষকে দেশ ছাড়তে হতে পারে, সি-লেভেলের পরিবর্তনের কারণে। এবং বিরূপ আবহাওয়ার কারণে অভিবাসী সংকট এখনকার তুলনায় আরও ব্যাপক আকার ধারণ করবে। বাংলাদেশের প্রথমসারির এক বিজ্ঞানী বলেছেন, ‘গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণের জন্যে দায়ী দেশগুলিতে বাংলাদেশের মতো দেশের অভিবাসীদের যেতে পারার অধিকার থাকা উচিত। লাখ লাখ লোকের যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হওয়ার সুযোগ থাকা উচিৎ।’  

৯৪৭ পঠিত ... ১৬:২৬, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top