গোঁফ থাকায় বাংলার অনলাইনে যেমন বিপদে পড়লেন অক্সফোর্ড প্রফেসর টিপু আজিজ

৬৪৪ পঠিত ... ২০:৪৩, এপ্রিল ১০, ২০১৯

সেই কবে নজরুল লিখেছিলেন, ‘বিশ্ব যখন এগিয়ে চলেছে, আমরা তখনও বসে- বিবি তালাকের ফতোয়া খুঁজেছি, ফিকাহ ও হাদিস চষে’। প্রায় এক শতাব্দী কেটে গেলেও ধর্মীয় গোঁড়ামি নিয়ে বলা কথাগুলো এখনো যে প্রাসঙ্গিক তার প্রমাণ আমরা প্রায়ই পাই। এই যেমন কিছুদিন আগে দ্য ডেইলি স্টারের ফেসবুক পেজে একটি পোস্টের কমেন্ট সেকশনে নজরুলের লাইনগুলোর প্রাসঙ্গিকতা আবারও অনুধাবন করা গেল।

সম্প্রতি বাংলাদেশে জন্মগ্রহণকারী ব্রিটিশ অধ্যাপক এবং অক্সফোর্ড ফাংশনাল নিউরোসার্জারির প্রতিষ্ঠাতা টিপু আজিজ ব্রিটেনের সর্বোচ্চ নিউরোসার্জারির পুরস্কার লাভ করেছেন। নিউরোসার্জারিতে তার অবদানের জন্য আজীবন সম্মাননা হিসেবে ‘মেডাল অব দ্য সোসাইটি অব ব্রিটিশ নিউরোলজিকাল সার্জনস’ প্রদান করা হয়েছে। এই চমৎকার খবরটি পোস্ট করা হয়েছিল ডেইলি স্টারের ফেসবুক পেজে। সেখানে অনেকে প্রশংসা করেন, অনেকেই আফসোস করে বলেন যে, বাংলাদেশে থাকলে হয়ত নানান জটিলতায় পড়ে অধ্যাপক টিপু আজিজের এমন সাফল্য পেতে হতো না।

কিন্তু পাশাপাশি একদল মানুষকে পাওয়া যায়, তার গোঁফ নিয়ে প্রশ্ন তুলতে। ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী একজন পুরুষের গোঁফ রাখার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা আছে। সেই কথা মনে করিয়ে দিয়ে অনেকেই বিভিন্ন রকম অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্য করেন। এক ব্যক্তি অধ্যাপক আজিজের গোঁফ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন, ‘যে লোক নিজের গোঁফ ঠিক করতে পারে না, সে কী করে সফল সার্জারি করবে?’ আরেক ব্যক্তি ছিলেন আরও এক কাঠি সরেস। তিনি অধ্যাপক আজিজের গোঁফের ‘সার্জারি’ করে ‘ঠিক’ করে দেওয়ার বাসনা প্রকাশ করেন। আরও একাধিক মানুষকে অধ্যাপক আজিজের ধর্মীয় পরিচয় নিয়ে কৌতূহলী হতে দেখা যায়। আবার অন্য একজন চিন্তিত হয়ে পড়েন ডক্টর আজিজ হালাল নাকি হারাম খাবার খাচ্ছেন সেই বিষয় নিয়েও।

তবে সবাই যে এসবই বলেছেন তাও কিন্তু না। বাংলাদেশে চিকিৎসক হতে কিংবা হয়ে যেসব সংকটের মুখোমুখি হতে হয়, আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, বিসিএস এসব প্রসঙ্গ টেনে এনেও আফসোস করে বলেছেন যে, টিপু আজিজ বাংলাদেশে থাকলে হয়ত এসব ঝামেলাতে পড়ে এত চমৎকার কিছু কখনোই করতে পারতেন না। তবে বাকিদের মন্তব্য যাই হোক, eআরকির পক্ষ থেকে অধ্যাপক টিপু আজিজকে অভিনন্দন। 

৬৪৪ পঠিত ... ২০:৪৩, এপ্রিল ১০, ২০১৯

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top