সচল হতে শুরু করেছে রাজশাহীর মানুষের ফোন

৫০৫ পঠিত ... ১৭:২৫, জুলাই ০২, ২০২২

Sochol-hocche-rajshahir-manusher-phone

আমের সিজন প্রায় শেষের দিকে। কমতে শুরু করেছে রাজশাহীর মানুষের বিড়ম্বনা। ধীরে ধীরে সচল হতে শুরু করেছে ওই অঞ্চলের সিমগুলো। একটি বেনামি মোবাইল কোম্পানির তথ্যমতে এমনটা নিশ্চিত হয়েছে eআরকি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কেউ ফোনে চার্জ দিচ্ছে, কেউ ফোনে কথা বলছেন, কেউবা ফোন থেকে ধুলা সরাচ্ছেন। কথা বলতে চাইলে একজন বলেন, ‘ফোন আলমারিতে ঢুকিয়ে রেখেছিলাম। আজ সকালে বের করছি। এখন প্রেমিকা, আত্মীয়-স্বজনের সাথে কথা বলবো।‘

তবে আমের সিজনের প্রায় শেষের দিকে হলেও কেউ কেউ ফোন খুলেই পড়ছেন বিড়ম্বনায়। এমনই একজন বলেন, ‘ফোনটা চার্জ দিয়ে মাত্র খুললাম। সাথে সাথে ঢাকার দুই বন্ধুর ফোন। জিজ্ঞেস করতেছে, আম পাকছে কিনা! এখন ভাবতেছি, ফোন আবার বন্ধ করে রাখবো।‘

এদিকে বছরে একবার ফোন দিয়ে খবর নেওয়া বন্ধু দেখি অনলাইনে বিশাল বিশাল মেসেজ দিয়ে রেখেছে। মেসেজে বলেছে আমি নাকি বেঈমান, নিমকহারাম! বছরে একবার ফোন দিতে তার আজ পর্যন্ত যত টাকা আর সময় খরচ হয়েছে তাও ফেরত চাইছে বন্ধু। দেখেই মনটা খারাপ হয়ে গেল। বন্ধুটা আমার আমের কাল হলেই ফোন দিয়ে খোঁজ খবর নিতো, রাজশাহীর আমের ফলনের খবর আরো বেশি করে নিতো। পরে অবশ্য তাকে আম ম্যানেজ করেও দিতে বলতো। কিন্তু আমের চেয়েও মিষ্টি বন্ধুটা আমার যে এত অভিমান করলো, এখন কী করি বলুন তো?

তবে বন্ধ রেখে কিছুটা বিপদে পড়েছেন রাজশাহীর আসাদ নামের একজন। তিনি বলেন, ‘আমের প্রেমে পড়ে নিজের প্রেমিকার কথা ভুলে গেছিলাম। ফোন বন্ধ করে রেখেছিলাম দেখে যোগাযোগ হয়নি। ও বেশ কয়েকবার আম পাকছে কি না মেসেজ পাঠাইছে। এখন দেখি আমি ব্লক।‘

 

৫০৫ পঠিত ... ১৭:২৫, জুলাই ০২, ২০২২

Top