প্রেম করার পর আমার মাঝে যে পরিবর্তনগুলো দেখা দিল

৪২৮ পঠিত ... ১৭:২৫, জুন ০২, ২০২২

Premer-por-je-change-dekha-gelo

প্রেমে পড়ার আগে আর পরে বাহ্যত দেখতে কোনো পার্থক্য নেই। কিন্তু একটু ভালোভাবে খেয়াল করলে? আকাশ-পাতাল তফাত। সেই পার্থক্যগুলোই নিজ বয়ানে তুলে এনেছেন সঞ্জয় সরকার। কী অভিজ্ঞতা হয় প্রেমে?

 

# প্রথম ধাক্কাটা লাগল ঘুমে। আগে অ্যালার্ম বাজলে ঘুম থেকে উঠতাম। প্রেম করার পর কী হলো জানি না। শরীরে অলসতা চলে এল। অ্যালার্ম বেজে বন্ধ হয়ে যায়। প্রেমিকা কল দেয়। চোখ বন্ধ করেই কল রিসিভ করি। জড়ানো কণ্ঠে অ্যাঁ উঁ করি। এমন না যে স্পষ্ট ভাষায় কথা বলার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছি। তবু কেনজানি শুধু অ্যাঁ উঁ করে ফোন রেখে দেই। কিছুক্ষণ পর প্রেমিকা আবার কল দেয়। আগের কলেই উঠতে পারতাম। তবু উঠি নাই। কেন? কারণ প্রেমিকরা এরকম হয়! আমি ইচ্ছা করলেই হাজার বছরের এই ঐতিহ্য ভাঙতে পারি না।  

# গুনে গুনে বলে দিতে পারি প্রেম করার আগ পর্যন্ত এই জীবনে সর্বোচ্চ পাঁচবার আমার মোবাইল বন্ধ ছিল। এখন দিনে চার-পাঁচবার বন্ধ থাকে। কেন? বিদ্যুৎ সাশ্রয় করছি। আপনার কোনো সমস্যা? 

# জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব বোধহয় সবচেয়ে বেশি আমার উপর পড়েছে। কখন ঝড় হয়, কখন রোদ উঠে কোনো ঠিক ঠিকানা নাই। কারণ ছাড়াই দিনে কতবার যে আমার মুড সুইচ করে! এই ভালো। এই খারাপ। আড্ডা, মজা মাস্তি করছি। হুট করে মুখে অমাবস্যার কালো ছায়া নেমে আসে!

# বিশ্বাস করেন ভাই, আমি তাকে খুব আদর-যত্ন করতাম। খুব দেখেশুনে রাখতাম। আমার মোবাইলটার কথা বলছি। কিন্তু এখন প্রেমিকার সাথে ঝগড়া হলেই মোবাইল আছাড় মারি। 

# পেট চোঁ-চোঁ করে, তবু খাই না। প্রেমিকা কল দিলে বলি, ‘আর খাওয়াদাওয়া। আমি কী খাই না খাই কারও কোন খেয়াল আছে নাকি? থাক। এই অবেলায় কী দরকার খোঁজখবর নেওয়ার।‘

# আগে সুন্দর সময়মত ক্লাসে চলে যেতাম। প্রেমিক হওয়ার পর কী হলো জানি না। ক্লাসের আর ১০ মিনিট বাকি। আমি বেঘোর ঘুমে। প্রেমিকা কল দিয়েই যাচ্ছে। তড়িঘড়ি করে ব্রাশটা করেই ক্লাসে দৌড় মারি। শার্টের বোতাম ঠিক থাকে তো প্যান্টের জিপার খোলা থাকে! 

# আগে চুল-দাড়ি ঠিক সময় কাটাতাম। আর এখন? প্রেমিকা টানা কয়েক সপ্তাহ বলে, ‘নিজেরে আয়নায় দেখ না কতদিন? পুরাই রামছাগলের মতো দেখতে হইছো তা কি তুমি জানো? না। ভুল বললাম। রামছাগলও তোমার চেয়ে সুন্দর!’ তারপর যদি মন ভাল থাকে তো সেলুনে যাই। নাহলে আরও কয়েক সপ্তাহ অপেক্ষা করি। 

# রুমে স্পেশাল রান্নাবান্না হবে। হল জীবনের বিশেষ ঘটনা। হলের স্বচ্ছ পানির ডাল খাওয়ার কাছে স্পেশাল পার্টি অমৃত সদৃশ। খেতে বসব এমন সময় প্রেমিকার কল। কথা বলতে বলতে রুমের বাইরে চলে গেলাম। কথা শেষে রুমে এসে ধুপ করে শুয়ে পড়লাম। খাওয়াদাওয়ার গুষ্টি কিলাই! 

# প্রেম করার আগে জানতাম না, এটাকে মানুষ বিশেষ যোগ্যতা মনে করে। আগে ভার্সিটির সুন্দর জুনিয়র মেয়েদেরকে নক করলে তেমন কোনো সাড়া পেতাম না। এখন তারাই নক দেয়। ‘ভাইয়া, ভালোই তো প্রেম করতেছেন। জুনিয়রদের তো আজকাল কোনো খবর রাখেন না। আসেন, একদিন চা খাই।‘  

# জানি শেষ পয়েন্ট পড়ার পর কী ভাবছেন। এই লেখা প্রেমিকা দেখলে? না। কোনো সুযোগ নাই। গতকাল ঝগড়া হইছে। এখন আমি তার ব্লক লিস্টে! তিন চার দিনের আগে খুলবে না। এই কয়েকটা দিন একটু স্বাধীনতা উপভোগ করি!

 

৪২৮ পঠিত ... ১৭:২৫, জুন ০২, ২০২২

Top