স্ট্যান্ডআপ কমেডি শো-তে দর্শকদের হাসানোর জন্য আরো যা যা করা যেতে পারে

৩৫২ পঠিত ... ২০:২৭, জানুয়ারি ০৮, ২০২২
standup-comedy-10-tech
অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও স্ট্যান্ডআপ কমেডি শো হয়। কিন্তু অভিযোগ আছে, দেশের কমেডি শো তে দর্শকরা হাসেন না, কেউ কেউ নাকি শো দেখে কাঁদেনও। eআরকি থাকতে দেশের এত বড় সর্বনাশ কোনভাবেই হতে দেয়া যায় না। তাই আমরা স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ানদের জন্য নিয়ে এসেছি দর্শকদের হাসানোর ১০টি ফাটাফাটি টেকনিক।
 
১# লাফিং গ্যাস ছিটিয়ে দেয়া অনেক পুরোনো টেকনিক। একটু ট্রেন্ডি টেকনিক অ্যাপ্লাই করা যেতে পারে। স্কুইড গেমের ওই পুতুলটাকে স্টেজে দাঁড় করিয়ে রেখে শো শুরু করা যায়। নিয়ম থাকবে, সবসময় হাসতে হবে। নিয়ম ভাঙলেই পুতুল পুতুলের কাজ করবে।
 
২# বিডিএসএম পদ্ধতি চেষ্টা করে দেখা যেতে পারে। শো-তে ঢুকার সাথে সাথেই দর্শকদের শক্ত করে বেঁধে ফেলা হবে। এরপর মোলায়েম ওই বিশেষ জিনিসগুলা দিয়ে পায়ের তালুতে একটু সুড়সুড়ি দিতে হবে। দেখি, ব্যাটারা না হেসে কই যায়!
 
৩# স্ট্যান্ডআপ কমেডিতে হাসা খুবই মেইনস্ট্রিম। বরং স্ট্যান্ডআপ কমেডিতে কান্নাকে ট্রেন্ডিং এ আনতে হবে। সাধারণ মানুষের মাঝে এমন একটি ধারণা তৈরি করতে হবে যে, স্ট্যান্ডআপ কমেডি শুনে কাঁদাই নিয়ম। এরপর আর কোন পরিশ্রম নেই, মানুষ তো এমনিতেই কাঁদে।
 
৪# টিকেট কেটে কমেডি শো-তে ঢুকার পরই নিয়ম করে দিতে হবে, না হাসলেই জরিমানা। পকেটের এতগুলো টাকা গচ্ছা যাওয়ার পর কেউ নিশ্চয়ই আর টাকা খসাতে চাইবে না। হাসবেই।
 
৫# স্কচ টেপ দিয়ে দর্শকদের উপরের ঠোঁট নাকের সাথে ও নিচের ঠোঁট থুতনির সাথে আটকে দিতে হবে। এতে দাঁত দেখা যাবে। দাঁত যেহেতু দেখা যাচ্ছে তার মানে সবাই হাসতেছে। সমালোচকদের শক্ত জবাব দেয়া যাবে।
 
৬# ভালো/অনেক বেশি হাসার জন্য প্রণোদনা দেওয়া হবে—এমন একটি সিস্টেম চালু করতে হবে। যে যত বেশি হাসবে তত বেশি টাকা তার অ্যাকাউন্টে যোগ করতে হবে। তাহলে দেখবেন নিজ থেকেই পার্টিসিপ্যান্টরা হিহি করে হাসতে থাকবে।
 
৭# মাথায় গুলি ঠেকিয়ে ‘হাসবি কি না বল’—সিস্টেম চালু করা যেতে পারে। খেয়াল রাখতে হবে একজনের মাথায় গুলি ঠেকাতে গিয়ে যাতে অন্য কোনো দর্শকের কাছে ধরা না খান। এতে হিতে বিপরীত হয়ে হাসির চেয়ে দর্শক আতঙ্কিত হয়ে যেতে পারে।
 
৮# স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ানের পেছনে একটি অদৃশ্য পর্দা রাখা যেতে পারে। সেখানে টানা হাসির কার্টুন কিংবা হাসির উপাদান থাকবে। দর্শক কমেডি না শুনলেও স্টেজে তাকিয়ে অন্তত হাসবেন। সেখান থেকে ‘স্ট্যান্ডআপ কমেডি’ দেখেই হাসছে দর্শন এমন একটি ভাইব ছড়িয়ে যাবে এন্টারটেইনমেন্ট জগতে।
 
৯# করোনার চতুর্থ ঢেউ আসছে। মাস্ক খোলার উপায় কিন্তু একদম নেই। তবে এক্ষেত্রে আপনি একটু চালাক হতে পারেন। টাইট করে মাস্ক পড়ে ব্যাকগ্রাউন্ডে মোবাইলে হাসির শব্দ বাজাতে পারেন। এতে করে আপনাকে কষ্ট করে হাসতেও হবে না, আবার দায়িত্বও পালন হবে।
 
১০# এত হাসাহাসি নিয়ে ভাবার দরকার নাই। শো করার দরকার শো করেন, কে হাসলো কে হাসলো সেটা একজন কমেডিয়ানকে যদিও এতকিছু দেখতে হয় তাহলে লোকটা কমেডি করবে কখন?
 
৩৫২ পঠিত ... ২০:২৭, জানুয়ারি ০৮, ২০২২

Top