শীতে বিয়ে করার ৭টি মহা উপকারিতা

৯৩৬ পঠিত ... ১৮:৩৪, ডিসেম্বর ১৯, ২০২১

Sheet-e-biyer-Upokarita

শীতকালে চারদিকে বিয়ের ধুম পরে যায়। কখনও কি মনে প্রশ্ন জেগেছে শীতকালে কেনো এতো বেশি বিয়ে হয়? দুষ্টু পাঠক, আপনি যেটা ধারণা করছেন সে কারণ তো আছেই, এছাড়াও শীতে বিয়ে করার আরও কারণ রয়েছে। এর মাঝে প্রধান ৭টি কারণ eআরকির পাঠকদের জন্য ভেবে বের করেছেন জিয়াদ মল্লিক   

# পরিশ্রমে সুবিধা: বিয়ের আয়োজন করতে আয়োজকদের অনেক পরিশ্রম করতে হয়। দাওয়াত, খাওয়া-দাওয়া, প্যান্ডেল- কতো কাজই না করতে হয় বিয়েতে! সাধারণত গরমের দিতে একটু পরিশ্রম করলেই হাঁপিয়ে উঠতে হয়। কিন্তু শীতের দিনে এক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা। তবে এই সুবিধা অন্য পরিশ্রমেও অবশ্য আছে।  

# সাজগোজে দেয় স্বস্তি: দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে শীতের সময় ছাড়া দীর্ঘ সময় মেকআপ থাকে না। গরমে-ঘামে মেকআপে সমস্যা সৃষ্টি হয়। কিন্তু শীতের সময় বিয়ের সাজগোজ সহজ হয়। তাই বর-কনে ছাড়া বাকিরাও বিয়েবাড়ির সাজের আনন্দ নিতে পারে মন মতো।

# ডেকোরেশন: শীতকালে ডালিম, রজনীগন্ধা, অর্কিড, গাঁদা, গোলাপ, জুঁইসহ নানান টাটকা ফুল পাওয়া যায়। তাই কৃত্রিম ফুলের প্রয়োজন হয় না। চাইলে পুরো বিয়ের অনুষ্ঠান প্রাকৃতিক ফুলে সাজানো যায়। অবশ্য, বাসর রাতে  তাজা ফুলের মাঝে যদি পোকার আগমন ঘটে, তাহলে এই জিনিস বাছতে বাছতেই রাত কাভার হয়ে যাবে।

# ফল কেনার ঝামেলা নেই: সাধারণত গরমের সময় নানান মৌসুমী ফল পাওয়া যায়। যেমন শীতে আম, লিচুর ফলন খুব একটা নেই। তাই শীতের সময় বিয়ে হলে মৌসুমী ফল কেনার ঝামেলাও নেই।

# বিদ্যুৎ বিল: শীতকালে ফ্যান চালাতে হয় না। আবার দ্রুত ঘুমানোর একটা তাড়া থাকে। তাই সব লাইট-টিভিও তাড়াতাড়ি বন্ধ হয়ে যায়। এতে মাসিক বিদ্যুৎ বিল এক্কেবারেই কম হবে। আর তাড়াতাড়ি ঘুমোতে যাওয়া মানে অনেকের আবার লাভই লাভ…

# খাট কাঁপাকাপির একটা ব্যাখ্যা দাঁড় করানো যায়: প্রচণ্ড শীতে দাঁত কাঁপে খটাখট। হয়তো কাঁপুনিতে কাঁপতে পারে খাটও। সেটা বর-বউ হোক, বা বেড়াতে আসা অন্য কারোর খাটও। কাজেই খাটের শোব্দ হলে এই সময়ে অন্য কিছু ভাবার সুযোগ নেই। আর ভাবলেই বা কী এসে যায়…

# হানিমুনে সুবিধা: বিয়ের পর খুব বেড়ানো যায়। রোদের তাপ নেই, ক্লান্তি নেই। বরের হাত ধরে নতুনের স্বাদটা ভালোই উপভোগ করা যায় শীতে। একেবারে ষোলোকলা পূর্ণ এক হানিমুন!

৯৩৬ পঠিত ... ১৮:৩৪, ডিসেম্বর ১৯, ২০২১

Top