ফেসবুকের 'রুম' ব্যবহারের আগে বাঙালি হিসেবে যে ১০টি ব্যাপারে খেয়াল রাখবেন

৮৫৬ পঠিত ... ২৩:৪৯, জুলাই ২২, ২০২০

সেই প্রাগৈতিহাসিক যুগ থেকেই ফেসবুক বিভিন্ন অ্যাপের আইডিয়া মেরে দিয়ে ফেসবুকে একই রকম ফিচার অন্য নামে নিয়ে আসছে। স্ন্যাপচ্যাটের স্টোরি ব্যাপারটা তো একেবারে দখলই করে নিলেন জুকারবার্গ ভাই। এই ভিডিও কলিংয়ের যুগে ফেসবুক এবার নিয়ে এসেছে 'জুম' অ্যাপের সকল সুবিধা, তবে নাম দিয়েছে 'রুম'! ফেসবুকে নতুন আসা এই চ্যাটরুম এখনও অনেকে বুঝে উঠতে পারছেন না। হোটেল কিংবা মেসের রুমের ব্যবহারবিধি আমরা জানলেও (মানি না যদিও) ফেসবুকের চ্যাটরুমের বিষয়গুলো কী? তা জানাতেই হাতে কিবোর্ড তুলে দিলেন আমাদের রুম স্পেশালিস্ট দল।

১. প্রথমেই, রুমের ছিটকিনি অপশনটি খুঁজে বের করুন। ফেসবুক রুমে এই অপশনটি দিয়েছে কিন্তু সেটা নড়বড়ে। তাই গুগল করে ছিটকিনিটি খুঁজে সেটা ভাল করে লাগিয়ে নিন।

২. জুতা কখনোই দরজার বাইরে রাখবেন না। জুতা রুমের মধ্যে নিয়ে রাখুন। এতে বাইরে থেকে কেউ বুঝবে না যে আপনি রুম ব্যবহার করছেন। বুঝেনই তো, রুম মানেই সাধ্যের মধ্যে সবটুকু প্রাইভেসি।

৩. রুমে মধ্যে কোনো লুকানো ক্যামেরা আছে কিনা খুঁজে দেখুন। এজন্য অভিজ্ঞ একজন টেক বিশেষজ্ঞের সাহায্য নিন।

৪. মনে রাখবেন, ফেসবুকের রুম ঘুমানোর জন্য বানানো হয়নি। তাই, রুম এ ঢুকে ঘুমিয়ে পড়বেন না।
রুমে সর্বদা এনার্জেটিক থাকুন। এ কারণেই গুরুজনেরা বলেন, 'রুম তোমার নাম কী? স্টামিনাতে পরিচয়।'

৫. রুম সব সময় গোছালো রাখুন। অগোছালো রুম মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য হানিকারক। উল্টাপাল্টা লোকজনকে রুমে আমন্ত্রণ জানাবেন না। এরা রুমে এসে বিড়ি খাবে আর দোষ হবে আপনার৷

৬. রুমের চাবি বন্ধুবান্ধবকে দিবেন না। দিয়ে থাকলে, রাত্রে আপনাকে ঘুমাতে হবে গাছের নিচে। হয়ে যাবেন, নিজ রুমে পরবাসী।

৭. বাবা মা কেউ আপনার রুমে আসতে চাইলে তাদের বলুন নেট এ সমস্যা হচ্ছে। এই সুযোগে রুমটা গুছিয়ে ফেলুন৷ এ্যাস্ট্রে, বিভিন্ন রকম ছেড়া, বিভিন্ন রকম পেপার, বোতল ইত্যাদি সরিয়ে ফেলুন দ্রুত। এরপর দেখবেন, আপনার রুমে ঢুকে বাবা মা সেটাকে তীর্থস্থান ভাবতেও কার্পণ্য করবেন না।

৮. রুমে লাইট না জ্বালালেই ভালো। লাইট বন্ধ রাখলে সুবিধা হবে (চ্যাট করতে)।

৯. রুমের জানালা খোলার আগে আশপাশ ভালোমতো চেক করে নেবেন। তবে পর্দা না সরানোই ভালো।

১০. রুম থেকে বেরোবার সময় ভালোমতো লক করে যেতে ভুলবেন না কিন্তু।

৮৫৬ পঠিত ... ২৩:৪৯, জুলাই ২২, ২০২০

Top