ক্লাসের মিডলবেঞ্চারদের যে ১০টি লক্ষণ দেখে চিনবেন

৪৯০ পঠিত ... ১৯:৫৯, জুলাই ১৬, ২০২০

ফেসবুকের কল্যাণে এতদিন ব্যাকবেঞ্চারদের নিয়ে তো আমরা অনেক শুনলাম, জানলাম, দেখলাম। এবার একটু মিডলবেঞ্চারদের দিকে দৃষ্টিপাত করা যাক। ব্যাকবেঞ্চ থেকে সামনে চোখ বাড়িয়ে মিডলবেঞ্চারদের এক ডজন বৈশিষ্ট্য খুঁজে বের করে 'ক্যাম্পাস কানেক্ট' গ্রপে পোস্ট করেছেন মেহেদী হাসান, eআরকির পাঠকদের উদ্দেশে তা দেয়া হলো।

১# এরা সাধারণত থার্ড বেঞ্চ থেকে বসা শুরু করে।

২# মাঝামাঝি বসার পেছনে এদের যুক্তি হলো, ইচ্ছে হলে ক্লাসে মনোযোগ দেয়া যায় আবার ইচ্ছে হলেই উদাস হয়ে জানালা দিয়ে আকাশ দেখা যায়। সামনে ও পেছনে না বসার যুক্তি হলো, তাতে পড়া ধরার রিস্কি জোনে থাকতে হয়। মিডলবেঞ্চারদের সর্বাত্মক চেষ্টা থাকে সর্বাবস্থায় সবরকম ঝুঁকি এড়িয়ে চলা।

৩# এদের পড়া ধরার জন্য টিচারগণ তেমন উৎসাহ পান না। আধা বানিয়ে, আধা বুঝে, আধা বই থেকে- জোড়াতালি দিয়ে মোটামুটি বলতে পারে। ফেলনাও নয়, আবার নেয়ার মতও না।

৪# ক্লাসে পড়া জিজ্ঞেস করার জন্য যখন টিচারের চোখ এদিক ওদিক ঘুরতে থাকে, তখন মিডলবেঞ্চার আতঙ্কের মধ্যে থাকে। ক্রমাগত মনে মনে বলতে থাকে, 'লাস্টবেঞ্চ স্যার, লাস্টবেঞ্চ...'

৫# এসাইনমেন্ট নিয়ে এরা প্রথমে খুব উদ্বিগ্ন হয়ে থাকে। তারপর ভুলে যায়। এরপর জমা দেয়ার আগেরদিন গ্রুপে আলোচনা বা বন্ধু মারফত মনে পড়ে। তখন মাথায় আকাশ ভাঙার মত অনুভূতি হয়।

৬# এসাইনমেন্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে এরা প্রথমে প্রবল উৎসাহে মাঠে নামে। নেট, বই ঘেঁটে কিছুক্ষণের মধ্যে হতাশ হয়ে পড়ে। তারপর ক্লোজ মধ্যবিত্ত বন্ধুদের খোঁজ নেয়। অন্যদের এসাইনমেন্টে চোখ বুলিয়ে পছন্দ হয় না বলে আবার নিজে চেষ্টা করে। শেষ মুহূর্তে তারা ভালো স্টুডেন্টের থেকে কপি করে(হুবহু না) জমা দেয়। তবে তখন আবার আত্মগ্লানিতে ভোগে।

৭# এরা প্রচন্ড খারাপ পরীক্ষা হবে এরকম মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে হলে ঢোকে। তবে পরীক্ষা আশার চেয়ে তখন ভালোই হয়। কিন্তু যখন মোটামুটি ভালো পরীক্ষার কনফিডেন্স থাকে, তখন কেন জানি খারাপ হয়। প্রশ্নগুলো সবসময় চেনাজানা হয়, আর উত্তর আসি আসি করেও কলমে আসতে চায় না। অগত্যা জোড়াতালি দিয়ে কাজ চালাতে হয়।

৮# এরা রেজাল্টের আগে সর্বাধিক টেনশনে থাকে। তবে রেজাল্ট যাই হোক তাতে খুশি হবে কি হবে না তা নিয়ে দ্বিধায় থাকে। মনে খুঁতখুঁতে ভাবটা যায় না। আবার খুব খারাপ লাগে তাও না।

৯# এদের পড়াশোনায় তখনই প্রচন্ড তাগিদ আসে, যখন শোনে তার ক্লোজ ফ্রেন্ড পড়তে বসেছে। নিজে তৎক্ষণাৎ পড়তে বসলেও 'ও তো সব পইড়া ফালাইলো' চিন্তাটা কুরে কুরে খায়। পড়া হয় না।

১০# পড়াশোনার জন্য প্রচুর প্ল্যানিং এবং টেনশন এদের মজ্জাগত। তবে পড়তে বসে কল্পনাবিলাস অথবা ফেসবুকিং করে থাকে। তবে প্রতিটি পরীক্ষার পরই মিডলবেঞ্চার একটা দীর্ঘশ্বাস ফেলে, 'আরেকটু পড়লে ঠিকই পারতাম। শিট!'

৪৯০ পঠিত ... ১৯:৫৯, জুলাই ১৬, ২০২০

Top