ভিডিওকলে বসার আদবকেতা: যে ১০টি নিয়ম অবশ্যই মেনে চলবেন

১২৮৮ পঠিত ... ১০:৩৬, এপ্রিল ২৩, ২০২০

সময় এখন ওয়ার্ক ফ্রম হোমের। কখনোই ভিডিও কল দিতে কম্ফোর্টেবল বোধ না করা লোকদেরও আজ কোনো উপায় নেই! অফিস বলুন, ব্যবসা বলুন কিংবা টিউটোরিয়াল-কোর্স, ভিডিও কলে বসতেই হয় প্রায় সবার। তবে এই ভিডিও কলে বসারও রয়েছে কিছু আদবকেতা। ভিডিও কল চালু করার আগে, কল চলার সময়ে লাইন কাটা পর্যন্ত কিছু ব্যাপার অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। কী কী সেই ব্যাপার, আপনাদের জানাচ্ছে কোয়ারেন্টাইনে আজাইরা টাইমপাস করতে হুদাই ভিডিও কল-ভিডিও কল খেলে প্রতিনিয়ত বেইজ্জত হওয়া আমাদের ওয়ার্কিং ফ্রম হোম আইডিয়াবাজের দল!

১# সবার আগেই খেয়াল রাখতে হবে, আপনার পেছনে যেন ঘরের কেউ যাতায়াতের সুযোগ না পায়। কোন দেয়াল ঘেঁষে বসাটাই ভালো। ধরুন খুব গুরূত্বপূর্ণ কল চলছে, এই সময় বাবা আদুল গায়ে আপনার পেছন দিয়ে হেঁটে চলে গেলেন! কেমন হবে ব্যাপারটা?

২# হুট করে কল আসলে হুড়মুড় করে ভদ্র পোশাক গায়ে জড়াতে জড়াতে কল ধরবেন না। আগে নিশ্চিত হন জামাটা পরেছেন, তারপর কল রিসিভ করুন।

৩# কোন বিপদজনক প্রশ্নের (ওয়ার্ক ফ্রম হোমের ক্ষেত্রে বেশি প্রযোজ্য) উত্তর দেবার সময় এক্টিং করতে হতে পারে যে আপনার নেট লাইন চলে গেছে বা হ্যাং করেছে। আপনি পাথরের মতো নড়ছেন না, বস হ্যালো হ্যালো করে যাচ্ছে- এই সময়ে আপনার মাথার উপরে ফ্যান ঘুরতে দেখা যায়- ব্যাপারটা খুব ভালো হবে না নিশ্চয়ই। কাজেই কলে বসার আগে ক্যামেরার গণ্ডির ভেতর ফ্যান রাখা যাবে না। আর যদি থেকেই যায়, নেট লাইন ডিস্টার্ব করার অভিনয়ের ক্ষেত্রে সাবধান!

৪# সবসময় মাথায় রাখতে হবে, আপনি বাসায় বসে অফিস করছেন! সুতরাং মিটিং কিংবা কল ধরতে দেরি হলে সবসময়ের মতো 'জ্যামের দেরি হয়ে গেলো স্যার' বলে ফেলবেন না! 'নেটের সমস্যা ছিলো' বলতে পারেন, তবে বস এক পর্যায়ে ফেডাপ হয়ে আপনার বাসায় উচ্চমানের ইন্টারনেট কানেকশন জুড়ে দেবার আগ পর্যন্ত...

৫# ঘরে ত্যাঁদোড় বাচ্চা-কাচ্চা থাকলে কলে বসার আগেই তাদের সতেরোর ঘরের নামতা মুখস্থ করতে বলুন। এই নামতা আগেই মুখস্থ থাকলে একগাদা কাঁকড় মিশিয়ে চাল বাছতে দিন। এরা ফর্মে থাকলে আপনার মিটিংয়ের বারোটা বাজবে।

৬# অফিসের মিটিংয়ে ঢোকার আগে আপনি যে কাজের ব্যাপারে কতোটা সিরিয়াস, এটা বোঝাতে মা অথবা বাসার অন্য কাউকে আগেই ফিটিং দিয়ে রাখুন। কাজ খুব সহজ, মিটিংয়ের মাঝে এসে তিনি জাস্ট বলবেন- 'কিরে, কাজই তো করে যাচ্ছিস ভোর থেকে। খাবি না একটু?'

৭# মিটিংয়ে আপনার ভাব বাড়াতে ঘরে একটা রাবীন্দ্রিক আবহ রাখুন। এই ধরুন পাশেই পড়ে আছে একটা গিটার বা বাঁশি। আলগোছে উলটো করে রাখা দাঁত ভেঙে যায় এরকম কঠিন কোন বই। আপনার সম্পর্কে ভাল ধারণা তৈরি হবে সবার কাছে। এজন্য পুরো ঘর সাজানোর কোনো দরকার নেই। ক্যামেরায় যতটুকু দেখা যাবে ততটুকুই। ঘরের একটা দেয়াল বা একটা কোনা...

৮# পারতপক্ষে চশমা ব্যবহার বাদ দিন। ক্যামেরার সামনে রাবিন্দ্রীক পরিবেশ থাকলেও, চশমার রিফ্লেক্টে উলটো দিকের পরিবেশ সম্পর্কে মানুষ টের পেয়ে যেতে পারে!

৯) ঘরোয়া যে দায়িত্ব আপনাকে পালন করতে হয়, সেটা পারলে শেষ করেই বসুন। আচমকা 'ঘরটা মুছোস নাই ক্যান?' বা 'প্লেটগুলা কে ধুবে, আমি?' টাইপ কথা আপনি নিশ্চয়ই অন্যদের শোনাতে চান না?

১০) ইয়ে, কল শেষ হয়েছে কিনা, সেটা নিশ্চিত হবার আগ পর্যন্ত উঠে দাঁড়াবেন না। কঠিন কিংবা শক্ত ঝামেলায় পড়বেন!

১২৮৮ পঠিত ... ১০:৩৬, এপ্রিল ২৩, ২০২০

Top