করোনাভাইরাসের বন্ধের এই দিনগুলোতে যে ১০টি কাজ করা যাবে না

৫০৬ পঠিত ... ১৫:৫১, মার্চ ১৮, ২০২০

করোনা আতঙ্কে ধুঁকছে পুরো বিশ্ব। ১৮ মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত ১০ জন সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে, সামনে নিশ্চয়ই অপেক্ষা করছে আরও কঠিন দিন। টানা কয়েকদিনের দাবি ও আলোচনার পর অবশেষে স্কুল-কলেজ-ভার্সিটি বন্ধ দেয়া হয়েছে ৩১ মার্চ পর্যন্ত, অনেক অফিসও 'হোম অফিসের' দিকে ঝুঁকেছে। এই করোনার দিনগুলোতে যে ছুটিগুলো পেলেন, এটা কিন্তু অন্যান্য ছুটির মতো না। এই 'করোনার ছুটি'র দিনগুলোতে এমন অনেক কিছুই করা যাবে না, যা আপনি সাধারণ ছুটির দিনগুলোতে করতে পারেন! হোম কোয়ারেন্টাইনে বসে আর কোনো কাজ না থাকায় সেসব ভেবে বের করেছেন eআরকির কোয়ারেন্টাইনড আইডিয়াবাজদের দল।

১# স্কুল-কলেজ বন্ধ মানেই বন্ধুদের সাথে গ্রুপ ট্যুর, ফ্যামিলি ট্যুর, কাজিনস ডে আউট-ইত্যাদির হিড়িক। কিন্তু এই ছুটিতে এইসব করা যাবে না। অন্য জায়গা থেকে আপনি নিশ্চয়ই নিজের ঘরে করোনাভাইরাস বয়ে আনতে চান না?

২# এই লম্বা ছুটির অবসরে স্কুল-কলেজের অবিবাহিত শিক্ষকরা বিয়ে করার মতো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না। জামাই আদরের জন্য শ্বশুরবাড়িও যেতে পারবেন না বিবাহিত শিক্ষকরা। 

৩# স্কুল-কলেজ-ভার্সিটি তো বন্ধ। তবুও এই সময়টাতে কোচিংয়ে এক্সট্রা ক্লাস করে পড়াশোনায় একটু এগিয়ে থাকার সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে না। স্পেশাল টিচারের কাছে পড়ে আগের ক্লাসের পড়ায় এগিয়ে থাকার সুযোগও নেই। হোম টিউটরকে যদি চিপায় গিয়ে হালকা কাশতে শোনা যায় তাহলে হোম টিউটরকেও কিছুদিন ছুটি দিন। 

৪# বন্ধের খুশিতে বন্ধুর খালি বাসায় পার্টি করা যাবে না। তাছাড়া বাসাটা খালি হবেই বা কীভাবে, সবাই তো বাসায়! তবে ভরা বাসায়ও যে পার্টি না করাই ভালো, সেটা অন্য কথা...

৫# বাচ্চাদের স্কুলের নিয়ে যাওয়া সূত্রে সম্পর্কিত ভাবীরা এই দীর্ঘ সেপারেশনে আবেগি হয়ে হুট করে একে অন্যের বাসায় চলে যেতে পারবেন না! 

৬# বাচ্চাদের স্কুলতো ছুটি। প্যারেন্টাসরাও কম বেশি ফ্রিই আছে! তবে তারপরও কোথাও পারিবারিক দাওয়াত খেতে চলে যাওয়া যাবে না। ইনফ্যাক্ট দাওয়াত চাওয়াও যাবে না। 

৭# স্কুল বন্ধের এই দিনগুলো স্পেশাল ক্লাস, গ্রুপ স্টাডি ইত্যাদির কথা বলে আড্ডা দেয়ার সুযোগ একদমই নাই। 

৮# ডেটিং করার জন্য বড় বাজে মৌসুম। আপনারও ছুটি, প্রেমিক বা প্রেমিকারও ছুটি। এইটাই তো সমস্যা, বাসা থেকে বেরোবেন কোন ক্লাসের কথা বলে?

৯# ক্লাস চলাকালে খেলাধুলার একেবারেই সুযোগ পাওয়া যায় না বলে এই ছুটিতে আবার নিয়মিত খেলাধুলা করতে মাঠে চলে যাবেন না কিন্তু! খেলাধুলা সুস্থ থাকার জন্য, মাঠ থেকে ভাইরাস বাঁধিয়ে এনে অসুস্থ হওয়ার জন্য নয়!

১০# টেনশন করা যাবে না! করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সবরকম সতর্কতা (যতটুকু সম্ভব) যদি আপনি মেনে চলেন, এরপরও ঘরে বসে টেনশন করার নিশ্চয়ই কোনো মানে নেই, নাকি?

৫০৬ পঠিত ... ১৫:৫১, মার্চ ১৮, ২০২০

Top