বিপিএলের ফাঁকা গ্যালারি যে ১২টা কাজে ভাড়া দিয়ে লস রিকভার করা সম্ভব

১১১০ পঠিত ... ২০:০২, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯

বিপিএল যত না আলোচনায় আছে, তার চেয়ে বেশি আলোচনায় বিপিএলের ফাঁকা গ্যালারি! জাঁকজমকভাবে শুরু হলেও দর্শকদের খেলায় আগ্রহ নেই, গ্যালারির দর্শকশূন্যতা যেন মহাশূন্যের একাকীত্বকেও হার মানায়! টিকিট বিক্রি না হওয়ায় বিসিবির যত টাকার ক্ষতি হচ্ছে, তাতো রিকভার করা খুবই জরুরি। একটু চালাক হলেই কিন্তু বিসিবি সেই লস রিকভার করে ফেলতে পারে। গ্যালারি তো খালিই পড়ে আছে, বিভিন্ন কাজে ভাড়া দিতে সমস্যা কী? eআরকির বিপিএল বিষয়ক দল তাই ভাবতে বসেছিল, কী কী কাজে বিপিএলের এই ফাঁকা গ্যালারি ভাড়া দেয়া সম্ভব! এই বুদ্ধিগুলো কাজে লাগালে টাকা উঠবে না মানে? বরং আগের বছরের বিপিএলের চেয়ে বেশি লাভ চলে আসতে বাধ্য!

১# স্টেডিয়ামের জায়ান্ট স্ক্রিনে সিনেমা প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা যেতে পারে। প্রদর্শনীর জন্য সিনেমা না পেলে বা দর্শক সংকটের রিস্ক মনে করলে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মতো ভারতীয় সিনেমাই প্রদর্শন করতে পারে। প্রচুর টিকিট বিক্রি হবে!

২# গ্যালারির ফাঁকা চেয়ারগুলোতে আয়োজন করা যেতে পারে মিউজিক্যাল চেয়ার খেলা। বিপিএলের ফিক্সচার ও শিডিউলের সাথে মিলিয়ে চেয়ার খেলারও ফিকচার করা যেতে পারে। তাহলে পুরো সিজন জুড়েই ফাঁকা গ্যালারির একটা গতি হয়ে যাবে।

৩# বিয়ে, জন্মদিনের অনুষ্ঠান, খৎনা সহ বিভিন্ন প্রোগ্রামের জন্য কমিউনিটি সেন্টার হিসেবে ভাড়া দেয়া যেতে পারে। এতে গ্যালারিও পূর্ণ হবে, সাথে বিয়ে উপলক্ষ্যে প্রচুর হাউকাউও হবে। সেই হাউকাউকে পরে খেলার ক্রাউড বলে চালিয়ে দেয়া যাবে।

৪# গ্যালারির চেয়ারগুলো দিয়ে আয়োজন করা যেতে চেয়ার ছোড়াছুড়ি উৎসব। এই উৎসবের উন্মাদনাকে পরে বিপিএলের দুই টিমের সমর্থকদের মারামারারি বলে চালিয়ে দিয়ে টুর্নামেন্টের জনপ্রিয়তা সারা বিশ্বে প্রচার করা যাবে।

৫# শাড়ি, থ্রি-পিচ, কসমেটিকস-এর ফেসবুক ব্যবসায়ীদেরকে লাইভে আসার জন্য গ্যালারি ও জায়ান্ট স্ক্রিন দুইটাই ছেড়ে দেয়া যেতে পারে। তবে এই শীতে হুডি ব্যবসায়ীদের সাথে কন্টাক্ট করলে ভালো।

৬# বিপিএলের গ্যালারিকে রাজনৈতিক জনসভার জন্য ভাড়া দেয়া যেতে পারে। তবে খেয়াল রাখতে হবে, সেটা যেন বিএনপির জনসভা না হয়! তাহলে অনুমতি এবং 'জন' কোনটাই মিলবে না হয়তো!

৭# জয়া আহসান, পূর্ণিমা, পরিমনিদের সাথে কন্টাক্ট করে তাদের এক্সক্লুসিভ ছবি প্রদর্শনীর ব্যবস্থাও করা যেতে পারে। এই প্রদর্শনীর জন্য টিকেট বিক্রি করে বিপিএলের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি লাভ করা যাবে।

৮# মোটিভেশনাল স্পিকারদের মোটিভেশনের জন্য গ্যালারি ছেড়ে দেয়া যেতে পারে। তবে কোনভাবেই টিপিক্যাল মোটিভেশনাল স্পিকারদের দেয়া যাবে না। কেউ আসবে না, লস হবে। স্পিকার হিসেবে ইমরুল কায়েসকে রাখলে প্রচুর টিকেট বিক্রি হবে।

৯# গ্যালারিতে 'ক্রিকেট মেলা' টাইপ কোন মেলার আয়োজন করা যেতে পারে। সেখানে সাবেক বিখ্যাত ক্রিকেটাররা আসবেন, তাদের ব্যবহার করা জার্সি, ব্যাট, বল এসব বিক্রি হবে! দেখবেন, ভিড় সামলাতেই হিমশিম খেতে হচ্ছে!

১০# গ্যালারিকে নিরাপদ ডেটিং প্লেস ঘোষণা করে কাপলদের কাছে ভাড়া দেয়া যেতে পারে। স্টেডিয়ামের বাইরে আর কত পড়ে থাকবে তারা! তবে অবশ্যই গ্যালারি ক্যামেরা মুক্ত হতে হবে।

১১# গ্যালারির খালি চেয়ারগুলো দিয়ে আয়োজন করা যেতে পারে 'যেমন খুশি তেমন ভাঙো' টাইপ কোন চেয়ার ভাঙাভাঙি প্রতিযোগিতা। দেশের মানুষের ভাঙাভাঙির অভ্যাস তো আছেই। তাছাড়া দর্শকই যেহেতু নাই, চেয়ার রাইখাই বা কী হবে! তারচেয়ে বরং 'যেমন খুশি তেমন ভাঙো' প্রতিযোগিতাকে ব্র্যান্ডিং করা যেতে পারে।

১২# পুরো স্টেডিয়ামই মাউন্টেইনারদের ট্রেনিংয়ের জন্য ছেড়ে দেয়া যেতে পারে। স্টেডিয়ামের দেয়াল, গ্যালারি থেকে মাঠ আলাদা করা কাটা তারের বেড়া, ও গ্যালারির উচু-নিচু সিঁড়ি বেয়ে তারা রক ক্লাইম্বিং, ট্র্যাকিং ইত্যাদি প্র্যাকটিস করবে।

১১১০ পঠিত ... ২০:০২, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯

Top