তিস্তা ব্রিজের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ওই, মাগো আমার বন্যা আনা মমতা দিদি কই?

৩৬৫ পঠিত ... ১৯:৩৯, নভেম্বর ২৭, ২০১৯

যতীন্দ্রমোহন বাগচীর লেখা 'কাজলা দিদি' কবিতাটি নিশ্চয়ই পড়া আছে আপনার? 'কাল্ট' হয়ে ওঠা এই কবিতাটি পড়েনি এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া কঠিন। তবে যতীন্দ্রমোহন বাগচী এই যুগে থাকলে যে কবিতাটি লিখতেন, সেটা হতো 'মমতা দিদি'! উনি যেহেতু নেই, তাই কবিতাটি লেখার ধৃষ্টতা দেখিয়ে ফেলেছি আমরাই!

তিস্তা ব্রিজের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ওই,
মাগো আমার বন্যা আনা মমতা দিদি কই?
নদীর ধারে চরের মাঠে,
ঘেউ-ঘেউ-ঘেউ কুকুর ডাকে,
খরার ভয়ে ঘুম আসে না, একলা জেগে রই,
মাগো আমার বর্ষাকালের, মমতা দিদি কই?

সেদিন হতে কেন মা আর দিদিরে না দেখো;
দিদির কথা আসলে পরেই মুখটি কেন ঢাকো?
বুনতে চারা যাচ্ছি যখন
খরার ভয়ে কাঁপছি তখন,
ও-পার থেকে পানি মা আর দেয় না দিদি কেন?
আমরা ডাকি, দিদি কেন চুপটি করে থাকো?

বল্ মা দিদি কোথায় গেছে, আসবে আবার কবে?
বর্ষাকালে আবার কি মা বন্যাডুবি হবে?
দিদির মত ভেলকি দিয়ে
আমিও পানি লুকাই গিয়ে
খরার সময় ফলন মা আর কেমন করে হবে?
দিদিও নাই---পানিও নাই---কেমন মজা হবে!

বর্ষাকালে ভেসে গেছে আম গাছটার তল,
বানের পানি কোথায় এখন, এক ফোঁটা নেই জল!
সলিম চাচার ধানের মাঠে
ঘুঘু পাখি বেড়ায় হেঁটে,
উড়িয়ে তুমি দিও না মা খুঁজতে গিয়ে জল,
বর্ষাকালেই জলের তোড়ে পাবে না মা তল।

তিস্তা ব্রিজের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ওই,
মাগো আমার বন্যা আনা মমতা দিদি কই?
নদীর ধারে চরের মাঠে,
ঘেউ-ঘেউ-ঘেউ কুকুর ডাকে,
খরার ভয়ে ঘুম আসে না, একলা জেগে রই,
শীত যে এলো, মাগো আমার, মমতা দিদি কই?

৩৬৫ পঠিত ... ১৯:৩৯, নভেম্বর ২৭, ২০১৯

Top