যে ১০টি কারণে ভারত সফরে ইমরুল কায়েসই ছিলেন সেরা খেলোয়াড়

৫৯৭ পঠিত ... ২১:০৮, নভেম্বর ২৪, ২০১৯

নানান আয়োজন ও মিডিয়া এটেনশন নিয়ে শুরু হওয়া গোলাপি টেস্ট শেষ হয়েছে সোয়া দুই দিনেই! গোটা ভারত সফরে বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্স নিয়ে চলছে তীব্র সমালোচনা। কাকে নিয়ে সমালোচনা করা উচিত সে ব্যাপারেই দিশেহারা দর্শক ও ক্রীড়াবিশেষজ্ঞরা, সবাই যেন পাল্লা দিয়ে খারাপ খেলেছেন! তবে সবাইকে ছাপিয়ে আলোচনায় আছেন আমাদের সবার প্রিয় ক্রিকেটার 'ব্রো' খ্যাত ইমরুল কায়েস। পুরো দল খারাপ খেললেও সোশ্যাল মিডিয়ায় সবসময়ই খুব 'জনপ্রিয়' চরিত্র ইমরুল কায়েসকে নিয়েই যেন চলছে হাস্যরস। তবে কায়েস ব্রোর পারফরম্যান্সের সব দিক কিন্তু হেসে উড়িয়ে দেয়ার মতো না মোটেও।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ইমরুল কায়েসের পাগলা ফ্যানদের নানান ক্রীড়া বিশ্লেষণ ও গবেষণার সঙ্গে নিজেদের গবেষণা মিলিয়ে আমরা সিদ্ধান্তে আসতে পেরেছি, এই সিরিজে ইমরুল কায়েসই ছিলেন সেরা খেলোয়াড়। ইন ফ্যাক্ট, তাকে কেন ম্যান অফ দ্য সিরিজ করা হলো না, তা নিয়ে আন্দোলন হওয়া উচিত। লেখাটি পড়ুন, পড়ে নিজেই সিদ্ধান্ত নিন আপনিও সেই আন্দোলনে যোগ দেবেন কিনা!

১# ইমরুল কায়েস প্রথম টেস্টে দুই ইনিংসেই একটি করে মোট দুটি চার মেরেছেন। কিন্তু তিনি দ্বিতীয় টেস্টে কোন চারই মারেননি! এটা মূলত ইমরুল কায়েসের টেস্ট মেজাজের পরিচয় বহন করে। বাউন্ডারি মারার আগ্রহ যত কমে টেস্টে আউট হওয়ার সম্ভাবনাও তত কমে। ভারত সিরিজ থেকে নতুন খেলোয়াড়রা ইমরুল কায়েসের কাছ থেকে এই শিক্ষা নিতে পারে। শিক্ষা নিতে পারে রোহিত শর্মাও। কায়েসের চেয়ে দুই ইনিংস ও ১২ বল কম খেলেও বাউন্ডারি মেরেছেন তিনটি!

২# ভারতের সাথে টেস্ট সিরিজে কায়েস ব্যাট হাতে নেমেছেন মোট চার ইনিংস। যা এই সিরিজে বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মার মিলিত ইনিংসের সমান।

৩# এই টেস্ট সিরিজে ব্যাট হাতে মোট চার ইনিংস মিলিয়ে কায়েস ব্রো মোকাবেলা করেছেন ৬১ বল। যা ভারতের তারকা ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মার চেয়ে ১২ বল বেশি! রোহিত শর্মাকে পেছনে ফেলা চাট্টিখানি কথা না!

ছবি: Cricket Sarcasm

৪# টেস্ট ক্রিকেটে ধারাবাহিকতা বা কনসিস্ট্যান্সি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সে হিসেবে দুই দল মিলিয়ে সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটসম্যান আমাদের কায়েস ব্রোই! প্রথম টেস্টে দুই ইনিংসেই করেছেন ৬, কনসিস্ট্যান্সি লেভেল বুঝেন? দ্বিতীয় টেস্টেও একই রকম ধারাবাহিক তিনি। প্রথম ইনিংসে ৪, দ্বিতীয় ইনিংসে ৫, ধারাবাহিক দুটি সংখ্যা। সত্যিই, কায়েস ব্রোর লেভেলটাই আলাদা।

৫# গোলাপি বলের অনেকগুলো রেকর্ডই চিরদিনের জন্য নিজের করে নিয়েছেন ব্রো। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে গোলাপি বলে প্রথম রান তার, প্রথম আউট হওয়া ব্যাটসম্যানও তিনিই। সঙ্গে আছে আরও অনেকগুলো রেকর্ড, নিচের ছবিটায় চোখ বুলিয়ে 'দেখ রেকর্ড ম্যায় কউন হ্যায়'!

৬# গোলাপি টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ইমরুল কায়েসের ১৫ বলে ৫ রান একটি বিশাল অর্থ বহন করে। আপনার জানেন, ১৫ কে ৫ দিয়ে গুণ করলে হয় ৭৫! জানেনই তো, আমাদের প্রিয় সাকিব আল হাসানের জার্সি নম্বর ৭৫। অন্যরা শুধু খারাপ খেলেই সাকিবের অভাব ফিল করিয়েছেন, অথচ কায়েস ব্রো নিজের স্কোরেও স্মরণ করতে চেয়েছেন সাকিব ভাইকে। ব্রো-রা এমনই তো হয়!

৭# ১৫ বলে ৫ রান করার ব্যাপারটি আরও অনেক ডিপ। একটু ডিপ লেভেল থেকে চিন্তা করলেই বুঝবেন। ১৫ + ৫ = ২০। শুধু রানই করেননি, ব্রো আসলে ২০২০ সালকে স্বাগত জানিয়েছেন এই রানের মাধ্যমে। আবার ১৫ থেকে ৫ বিয়োগ করলে হয় ১০, এর মাধ্যমে হয়তো ব্রো বুঝিয়েছেন, 'দশে মিলে করি কাজ, হারি জিতি নাহি লাজ'!
এছাড়া এই স্কোরের আরও ডিপ লেভেলের ব্যাখ্যাও রয়েছে। ১ আর ৫ মিলে হয় ৬, তার সাথে আরো ৫ যোগ করলে হয় ১১। ১১ জনের খেলা যে ইমরুল কায়েস একাই খেলার ক্ষমতা রাখেন, ব্রো কি সে ব্যাপারটাই জানান দেননি?

৮# গোলাপি টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে শুধু যে ১৫ বলে ৫ রান করেছেন, এমনটাই না। খুবই সাংকেতিকভাবে তিনি করেছিলেন ম্যাচ সংক্রান্ত এক ভবিষ্যদ্বাণীও! ১৫ থেকে ৫ ভাগ দিলে ৩ হয়। অর্থাৎ, দ্বিতীয় দিনে ম্যাচ শেষ হবে না, বাংলাদেশ ম্যাচটা ৩ দিনে নিয়ে যাবেই। এছাড়াও কেউ কেউ বলেন, ৫ দিনের এই স্মরণীয় টেস্টে বাংলাদেশ হয়তো ৫ দিন টিকবে না, তা আগেভাগেই বুঝতে পেরে স্মৃতি হিসেবে শুধু ৫ রানই করেন আমাদের ব্রো। সত্যি, ম্যাচ রিড করার এমন ক্ষুরধার বুদ্ধি ও ক্রিকেটীয় মস্তিষ্ক বর্তমান টিটুয়েন্টির যুগে বিরল।

৯# গোলাপি বল-ডে নাইট টেস্ট, এইসব কিছুকে ছাপিয়ে এই সিরিজে বাংলার ফেসবুকে সবচেয়ে আলোচিত খেলোয়াড় কিন্তু ইমরুল কায়েসই! গোলাপি বলের পর সবচেয়ে বেশি শোনা গেছে ইমরুল কায়েসের নাম। বুকে হাত দিয়ে (নিজের) বলেন ঠিক কিনা!

১০# মুশফিক, মুমিনুল, মিথুনসহ দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড় খারাপ খেলেছে। কিন্তু ব্যাট হাতে চার ইনিংসে ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করার পরও সোস্যাল মিডিয়ার সমগ্র ট্রল নিজের কাঁধে নিয়ে ত্যাগ ও টিমমেটদের রক্ষার এক অসাধারণ নৈপূন্য স্থাপন করেছেন কায়েস ব্রো! এখানেও তিনিই এগিয়ে, তিনিই বাংলাদেশ টিমের সুন্দরবন, রক্ষাকবচ, ঢাল।

৫৯৭ পঠিত ... ২১:০৮, নভেম্বর ২৪, ২০১৯

Top