আজ ১২টি ছবি প্রকাশ করেছেন জনাব ওবায়দুল কাদের

৪৭০ পঠিত ... ২০:২৬, অক্টোবর ২১, ২০২১

ok-12-pic-up

ধারাবাহিকতা বজায় রেখে আজ ১২টি স্থিরচিত্র প্রকাশ করেছেন জনাব ওবায়দুল কাদের। জানা যায়, আজ আনুমানিক দুপুর দেড়টার দিকে এক উৎসবমুখর পরিবেশে জনসাধারণের জন্য নিজের এই মহামূল্যবান স্থিরচিত্রগুলো উন্মুক্ত করেন জনাব কাদের৷  

স্থিরচিত্রগুলো উন্মুক্ত করার সাথে সাথে জনাব কাদেরের ভক্তরা মহা আনন্দে ঝাঁপিয়ে পড়ে নানাবিধ প্রতিক্রিয়ায় নিজেদের আবেগ প্রকাশ করেন৷ এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত জনাব কাদেরের ছবিগুলোতে প্রায় ৭ হাজার ভালোবাসা সহ ৪০ হাজার প্রতিক্রিয়া পড়ে৷ প্রায় ৭০০ শুভানুধ্যায়ী স্থিরচিত্রগুলোকে ছড়িয়ে দিয়ে অন্যান্য ভক্তদের দেখার সুযোগ করে দিয়েছেন৷

১#

1

প্রথম ছবিতে দেখা যায়, পাত্র একটি ফুলের বাগানের সামনে দাঁড়িয়ে তাকিয়ে আছেন দূর দিগন্তের দিকে। এই রহস্যময় স্থিরচিত্রের মাধ্যমে পাত্র যেন কবি শামসুর রহমানের লেখা ও জেমসের গাওয়া তারায় তারায় রটিয়ে দেবো গানটিকে পোর্ট্রে করছেন। নিরব ফুলের সম্মুখে দাঁড়িয়ে যেন কোন প্রিয়তমার উদ্দেশ্যে বলছেন, ‘আমি তারায় তারায় রটিয়ে দেবো, তুমি আমার।'

২#

2

দ্বিতীয় ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড লক্ষ্য করলে দেখবেন সেখানে অর্ধেক রোদ ও অর্ধেক ছায়ার এক অপূর্ব সংমিশ্রণ খেলা করছে৷ তার সামনে দাঁড়িয়ে সম্মুখ পানে তাকিয়ে পাত্র যেন বলছেন, আলো, অন্ধকার কিংবা আবছায়া জীবন জুড়ে থাকবেই৷ সবকিছুকে পিছনে ফেলে হাসিমুখে সামনে এগুতে হবে৷

৩#

3

পেছনে সবুজ, এক কোনায় শুকিয়ে যাওয়া ডালপালার সদৃশ মিলয়ে তৃতীয় ছবি যেন ইঙ্গিত করছে বর্তমান পৃথিবীর অন্যতম সমস্যা পরিবেশ বিপর্যয়ের দিকে৷ পাত্র নীরবে সামনে তাকিয়ে যেন বলছেন, আমাদের নিশ্বাসের গ্যারান্টি কী!

৪#

4

চতুর্থ ছবির দর্শন বুঝতে হলে আপনাকে আবারো তাকাতে হবে প্রথম তিনটি ছবির দিকে৷ প্রথম ছবি থেকে দ্বিতীয় ছবি শরীরটিকে হালকা ঘুরিয়ে তৃতীয় ছবি হয়ে চতুর্থ ছবি সম্পূর্ণ বিপরীত দিকে তাকিয়ে পাত্র। জানাচ্ছেন, সুস্থ থাকতে হলে শরীরটিকে নাড়িয়ে একটু ব্যয়াম করে নেওয়ার কোন বিকল্প নেই৷

৫#

5

পঞ্চম ছবির পেছনে নানা রংয়ের ফুলের সামনে দাঁড়িয়ে পাত্র৷ ক্যাপশনে না লিখলেও ছবিই যেন বলছে, হাসি,আনন্দ, বেদনা যত যাই থাকুক মানুষের জীবন রংধনুর মতই সুন্দর৷

৬#

6

ষষ্ঠ ছবির দর্শন ঠিক বুঝে ওঠা যাচ্ছে না। তার মানে যে সেখানে কোন দর্শন নেই না! এই প্রজন্ম কিংবা তার পরের প্রজন্ম কিংবা হাজার বছর পরের কোন প্রজন্ম এই দর্শন একদিন বুঝতে পারবে বলে আমাদের বিশ্বাস৷

৭#

7

১১#

11

সপ্তম ও একাদশ ছবিটি খেয়াল করলে পেছনে ৩টি এসি দেখতে পাবেন৷ এগুলো শুধুই এসি না, সাম্প্রতিক সময়ে মানুষের অহেতুক উত্তেজনাকে প্রশমিত করতেই যেন এমন মেটাফোরিক এসির ব্যবহার করেছেন পাত্র। যেন বলছেন, 'চোড বাই, মাতা তান্ডা করো, তানাই কেচ করো।' শুধুমাত্র স্থিরচিত্র দ্বারা আইন নিজের হাতে তুলে না নেওয়ার এমন উদাত্ত আহবান যেন এক অনন্য মুন্সিয়ানা৷

৯#

9

৮#

8

১২#

11

নবম, অষ্টম ও দ্বাদশ ছবিগুলোতে আদতে কিছু দেখা না গেলেও পাত্রের হাতের দিকে লক্ষ করলে দেখবেন একটি হাতে শার্টের হাতা বের হয়ে আছে, অন্য হাতা স্যুটের ভেতর ঢুকানো। এমন ইঙ্গিত যেন পাত্রের বৈচিত্রময় জীবনেরই প্রতিচ্ছবি৷ যে বৈচিত্র্যময়তা ১১তম ছবিতেও ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন তিনি৷  

১০#

10

দশম ছবিতে পাত্রের মুষ্টিবদ্ধ হাত যেন জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে দৃঢ় থাকার প্রত্যয়কে দৃশ্যায়ন করে৷

৪৭০ পঠিত ... ২০:২৬, অক্টোবর ২১, ২০২১

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top