ফেসবুকে ভাইরাল ফটো এডিটিং অ্যাপ চক্র

১২২২ পঠিত ... ১৩:৩০, জুন ১৮, ২০২০

প্রথমে একটা এডিট করা ছবি সবার খুব ভালো লাগবে৷ আস্তে আস্তে সবাই সেই একই রকম এডিট করা ছবি প্রোফাইলে আপলোড করবে। প্রথমদিকে সবাই জানবে না কোন অ্যাপ দিয়ে ছবিটি এডিট করা হয়৷ তাই যারা শুরুর দিকে ছবিটা আপলোড দিতো তাদের রিকোয়েস্ট করে অনেক মানুষ তাদের ছবি এডিট করিয়ে আপলোড দেবে। কৃতজ্ঞতাস্বরূপ ক্যাপশনে তাদের ক্রেডিট দেবে৷ এই প্রক্রিয়ায় ব্যাপারটা ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়াবে৷ এর মধ্যে একদল লোক এসে উপস্থিত হবে যারা সব ট্রেন্ডেই গা ভাসায় কিন্তু বলে 'আমি যদিও কোন ট্রেন্ডে গা ভাসাই না তারপরও...'

এরপর আসবে আরেকদল হিংসুক লোক, যারা এলিট আর কুল ভাবে নিজেদের। এরা কোনো ট্রেন্ডে গা ভাসানোকে মহাপাপ মনে করে৷ তারা দাবি করে তারা নিজেরাও এসব ট্রেন্ডে গা ভাসায় না, আর যারা এসব আলতু ফালতু ট্রেন্ডে গা ভাসায় তারা 'কবীরা, সগীরা' পাপ করে জাহান্নামে ফ্ল্যাট বুকিং দিয়ে রাখছে।

এর মধ্যে ফটো এডিটিং অ্যাপটা ব্যাপকভাবে ভাইরাল হবে। ছেলেবুড়ো সবাই কম বেশি একবার করে হলেও সেই অ্যাপে এডিট করা ছবি আপলোড দেবে।

সবশেষে একদল লোক আসবে, যারা আরও দুয়েক কাঠি সরেস৷ এরা দাবি করে, উক্ত অ্যাপের পিছনে FBI, CIA, MOSSAD, RAW, ISI, MI6 সহ বিশ্বের নামীদামী অনেক গোয়েন্দা সংস্থা জড়িত৷ তারা মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে৷ বাঙালিরা যেহেতু প্রতি বেলায় জেফ বেজোস, টিম কুক, জাস্টিন ট্রুডোদের সাথে লাঞ্চ করে, তাদের যেহেতু সুইস ব্যাংকে মোবাইল একাউন্ট খোলা থাকে তাই তাদের এসব গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রক্ষায় সচেতন হতে এসব ভয়াবহ অ্যাপস ব্যবহারে বিরত থাকা উচিত৷

না শেষ হয় নাই, এরপরও আরও একদল লোক আসে, যারা আমার মত স্রোতে গা না ভাসিয়ে খানিকটা ডুবাডুবি করে উঠে পড়ে, তারপর এই সমস্ত ঘটনা নিয়ে এমন ব্যাঙ্গাত্মক লেখা লিখে সুশীল সমাজের প্রতিনিধি সাজতে চায়...

১২২২ পঠিত ... ১৩:৩০, জুন ১৮, ২০২০

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top